বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জেলা ভাগের বিরোধিতায় মুখ্যমন্ত্রীকে ‘লেডি বিন তুঘলক’ বলে আক্রমণ করলেন সুকান্ত
সুকান্ত মজুমদার, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

জেলা ভাগের বিরোধিতায় মুখ্যমন্ত্রীকে ‘লেডি বিন তুঘলক’ বলে আক্রমণ করলেন সুকান্ত

  • এই মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তৃণমূল। দলের সাংসদ শান্তনু সেন বলেন, ‘যারা নোটবন্দি আর GST-র মতো হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা আবার হঠকারিতা নিয়ে অন্যকে দুষছে? মোদী টিভিতে ভাষণ দিলে এখনো মানুষ আতঙ্কে থাকে।’

জেলা ভাগের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ফের একবার মুখ্যমন্ত্রীকে কড়া আক্রমণ করল বিজেপি। এবার টুইটারে সুর চড়ালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। এদিন এক টুইটে জেলা ভাগের সিদ্ধান্তের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে ‘লেডি বিন তুঘলক’ বলে উল্লেখ করেন সুকান্তবাবু। যা নিয়ে বিজেপি - তৃণমূল চাপানউতোর শুরু হয়েছে।

এদিনের টুইটে সুকান্তবাবু ইংরাজিতে লেখেন, ‘স্থানীয় আবেগকে গুরুত্ব না দিয়ে ৭টি নতুন জেলা তৈরির হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লেডি বিন তুঘলক। এটা অত্যাচারী শাসনের উদাহরণ। পশ্চিমবঙ্গ সরকার ঋণে ডুবে রয়েছে। এই সিদ্ধান্তের জেরে ঋণের বোঝা আরও বাড়বে। এর জেরে দুর্নীতির নতুন রাস্তা খুলবে।’

অর্পিতার পণ্ডিতিয়া রোডের ফ্ল্যাটে হাতুড়ি, চাবিওয়ালা নিয়ে হাজির ED

এই মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তৃণমূল। দলের সাংসদ শান্তনু সেন বলেন, ‘যারা নোটবন্দি আর GST-র মতো হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা আবার হঠকারিতা নিয়ে অন্যকে দুষছে? মোদী টিভিতে ভাষণ দিলে এখনো মানুষ আতঙ্কে থাকে।’

সোমবার নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা ভেঙে হবে সুন্দরবন জেলা। ইতিমধ্যে সুন্দরবন পুলিশ জেলা বিভাজন হয়েছে। এর জেলা সদর হতে চলেছে কাকদ্বীপ।

এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনা জেলা ভেঙে হতে চলেছে ইছামতি ও বসিরহাট জেলা। ইছামতি জেলার জেলাসদর হতে চলেছে বনগাঁ। এছাড়া নদিয়া জেলা ভেঙে হতে চলেছে রানাঘাট জেলা। মুর্শিদাবাদ জেলা ভেঙে হতে চলেছে কান্দি ও বহরমপুর জেলা। বাঁকুড়া জেলা ভেঙে হতে চলেছে বিষ্ণুপুর জেলা। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রশাসনিক কাজে সুবিধার জন্য এই পদক্ষেপ করেছে সরকার।

ওদিকে বিরোধীদের দাবি, ক্ষমতায় আসার পর থেকেই জেলা ভাগ ও পুলিশ কমিশনারেট গঠন করে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এতে সাধারণ মানুষের বিন্দুমাত্র উপকার হয়নি। বিরোধীদের দাবি, নিজের দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ সামলাতে একের পর এক জেলা গঠন করছেন মমতা। সঙ্গে এর জেরে রাজ্যে পুলিশের শাসন কায়েম রাখতে সুবিধা হচ্ছে তাঁর।

লজেন্স খেয়ে বলতে হবে স্বাদ, বাড়িতে বসেই বেতন পাবেন ৬২ লক্ষ টাকা!

জেলা ভাগের বিরোধিতায় ইতিমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে, নদিয়া ও মুর্শিদাবাদ জেলা ভাগ করায় আপত্তি রয়েছে অনেকের। নিমাইয়ের মাটি নদিয়া ভাগ হোক চান না সনাতনীদের একাংশ। ওদিকে মুর্শিদাবাদ জেলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়েও রয়েছে অনেক আবেগ। বাঁকুড়া থেকে বিষ্ণুপুরকে আলাদা করায় আপত্তি জানিয়েও মুখ খুলেছেন অনেকে। তবে জেলা ভাগের ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী যে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তা তৃণমূলের তরফে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন