বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Suvendu Adhikari: ‘IAS-IPSদের ধরে রাখার জন্য মুখ্যমন্ত্রী পৃথক জেলা ঘোষণা করেছেন’ কটাক্ষ শুভেন্দুর
বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

Suvendu Adhikari: ‘IAS-IPSদের ধরে রাখার জন্য মুখ্যমন্ত্রী পৃথক জেলা ঘোষণা করেছেন’ কটাক্ষ শুভেন্দুর

  • কোনও লাভ হবে না বলেই মনে করছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, ‘এর আগেও রাজের নাম পরিবর্তন সহ অনেক কিছু ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে তা একটিও বাস্তবায়িত হয়নি। আইএএস,আইপিএসদের ধরে রাখার ব্যাপারে ওনার লক্ষ্য পূরণ হবে না।’

গতকালই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাতটি পৃথক জেলা ঘোষণা করেছেন। আর এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সরব হয়েছেন বিরোধীরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাতটি জেলা ঘোষণা নিয়ে এবার আক্রমণ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর কটাক্ষ, আইএএস, আইপিএসদের ধরে রাখার জন্যই মুখ্যমন্ত্রী এরকম পদক্ষেপ করেছেন।

শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘আইপিএস, আইএএসদের বাংলায় ধরে রাখতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই কারণে তিনি আরও জেলা করতে চাইছেন।’ তবে তাতে কোনও লাভ হবে না বলেই মনে করছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, ‘এর আগেও রাজের নাম পরিবর্তন-সহ অনেক কিছু ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে তা একটিও বাস্তবায়িত হয়নি। আইএএস,আইপিএসদের ধরে রাখার ব্যাপারে ওনার লক্ষ্য পূরণ হবে না।’

প্রসঙ্গত, মুখ্যমন্ত্রী গতকাল যে নতুন সাতটি জেলা ঘোষণা করেছেন সেগুলি হল- সুন্দরবন, ইছামতী (উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ মহকুমা ও বাগদা নিয়ে), বসিরহাট, রানাঘাট, বিষ্ণুপুর, বহরমপুর এবং কান্দি। আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখার ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা এবং নাগরিকদের আরও উন্নতমানের পরিষেবা দেওয়ার জন্যই এই সাত নতুন জেলা তৈরি করা হবে বলে সোমবার নবান্ন থেকে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী ৬ মাসের মধ্যে এগুলি পৃথক জেলা হিসেবে বণ্টনের কাজ সম্পন্ন হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। পৃথক জেলা গঠনের প্রয়োজনীয়তার কথা স্বীকার করে নিলেও এর বিরোধিতা করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তিনি বলেছিলেন, ‘নতুন জেলা হলে তার জন্য যে পরিকাঠামোর প্রয়োজন রয়েছে তার জন্য রাজ্যের কাছে অর্থ নেই। আসলে দুর্নীতি থেকে চোখ সরাতে এরকম সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।’

বন্ধ করুন