বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বন্যার জন্য দায়ী উনি, ঈশ্বর ওনাকে ক্ষমা করবে না, মমতাকে আক্রমণ শুভেন্দুর
শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি শুভেন্দু।
শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি শুভেন্দু।

বন্যার জন্য দায়ী উনি, ঈশ্বর ওনাকে ক্ষমা করবে না, মমতাকে আক্রমণ শুভেন্দুর

  • শুভেন্দুর দাবি, ‘ডিভিসির জলে বন্যা হয়নি। বন্যা হয়েছে দুর্বল বাঁধ ভেঙে এজন্য দায়ী মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সরকার। বর্ষার আগে ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত যে কাজ হয় এবার সেই কাজ মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী করতে দেননি। কারণ তাঁকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের জন্য ১৮ – ২০ হাজার কোটি টাকা মাসে খরচ করতে হবে।

রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকায় বন্যার জন্য সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাঠগড়ায় তুললেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘ঈশ্বর ওনাকে ক্ষমা করবেন না।’

এদিন বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করে নবান্নে ফিরে ডিভিসিকে কাঠগড়ায় তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, ডিভিসির কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে রাজ্য সরকার। এব্যাপারে শুভেন্দু অধিকারীকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘এই বন্যার জন্য উনি দায়ী। গত ৩০ – ৪০ বছর ধরে বর্ষার আগে যে কাজ হয় সেই কাজ তিনি এবার কিছু করেননি। মুখ্যমন্ত্রী ভাতা দিতে ব্যস্ত। সম্পূর্ণভাবে উনিই দায়ী। উনি ব্যস্ত ছিলেন ভবানীপুরের উপনির্বাচন নিয়ে। সেজন্য এই ঘটনা ঘটেছে। যে সব জায়গায় বন্যা হয়েছে সেখানে বাঁধ ভেঙে জল ঢুকেছে। ডিভিসি জল ছাড়ার কারণে বন্যা হয়নি’।

সরাসরি মমতাকে আক্রমণ করে শুভেন্দু বলেন, ‘উনি ভবানীপুরে ভোটের জন্য, নিজের মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ার বাঁচানোর জন্য ৫০ লক্ষ মানুষকে ভাসিয়েছেন। এত বড় অপরাধ করেছেন। ঈশ্বর ওনাকে মাফ করবে না’।

শুভেন্দুর দাবি, ‘ডিভিসির জলে বন্যা হয়নি। বন্যা হয়েছে দুর্বল বাঁধ ভেঙে এজন্য দায়ী মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সরকার। বর্ষার আগে ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত যে কাজ হয় এবার সেই কাজ মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী করতে দেননি। কারণ তাঁকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের জন্য ১৮ – ২০ হাজার কোটি টাকা মাসে খরচ করতে হবে। রাস্তা ও বাঁধের খুব দুর্বল অবস্থা। তাই অতিবর্ষণে বাঁধ ভেঙে গিয়েছে’।

নিম্নচাপের বৃষ্টির জেরে ফুঁসছে পশ্চিমাঞ্চলের নদনদীগুলি। তার পর জেরে বাঁধগুলি থেকে লাগাতার জল ছাড়ছে দামোদর উপত্যকা কর্তৃপক্ষ। সেই জলে প্লাবিত ২ মেদিনীপুরের বিস্তীর্ণ এলাকা। বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে হাওড়া ও হুগলির একাংশে।

 

বন্ধ করুন