বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হিমশৈলের চূড়া, দালালদের গ্রেফতার করলে আরও বেরোবে, বললেন শুভেন্দু
শুভেন্দু অধিকারী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই এবং এএনআই)

হিমশৈলের চূড়া, দালালদের গ্রেফতার করলে আরও বেরোবে, বললেন শুভেন্দু

  • এদিন শুভেন্দু বলেন, ‘এটা ৩০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি। এই দুর্নীতির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী যাকে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করতে চান তাঁর চক্র সম্পূর্ণভাবে যুক্ত। যারা নাম সংগ্রহ করেছে, সেই দালালচক্রগুলোকেও সিবিআই ইডির ধরা উচিত।

নিয়োগ দুর্নীতিতে SSC-র উপদেষ্টা কমিটির প্রাক্তন আহ্বায়ক শান্তিপ্রসাদ সিনহা ও সদস্য অশোক সাহার গ্রেফতারি নিয়ে মুখ খুললেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। বুধবার সন্ধ্যায় দু’জনের গ্রেফতারির কিছুক্ষণের মধ্যেই এক সাংবাদিক বৈঠকে শুভেন্দুবাবু বলেন, ‘হিমশৈলের চূড়ামাত্র। এটা ৩০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি।’

এদিন শুভেন্দু বলেন, ‘এটা ৩০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি। এই দুর্নীতির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী যাকে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করতে চান তাঁর চক্র সম্পূর্ণভাবে যুক্ত। যারা নাম সংগ্রহ করেছে, সেই দালালচক্রগুলোকেও সিবিআই ইডির ধরা উচিত। দু ধরণের দালাল কাজ করেছে। একদল বিধায়ক। ইতিমধ্যে তাপস সাহার চিঠি প্রকাশ্যে এসেছে। বীজপুর ও বলাগড়ের প্রাক্তন বিধায়কের চিঠি সামনে এসেছে। রামনগরের একজন হাফ মন্ত্রীর চিঠিও সামনে এসেছে। একদল রাজনৈতিক দালাল, শাসকদলের বিধায়ক ও মন্ত্রীরা। আরেকদল অরাজনৈতিক দালাল, চন্দন মণ্ডল ও কালীপদ পতিরা। এই দালালদের তুলে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই বোঝা যাবে এই চক্র কত গভীর পর্যন্ত কাজ করেছে’।

SSC দুর্নীতির তদন্তে বুধবার বিকেলে প্রথম গ্রেফতারির পথে হাঁটে সিবিআই। SSC-র উপদেষ্টা কমিটির আহ্বায়ক শান্তিপ্রসাদ সিনহা ও কমিটির সদস্য অশোক সাহাকে গ্রেফতার করে সিবিআই। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, কার নির্দেশে এরা আইন ভেঙে অযোগ্যদের নিয়োগ দিয়েছিলেন তা স্পষ্ট করছিলেন না ধৃতরা। বারবার তদন্তকারীদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছিলেন তাঁরা। এর জেরেই তাদের গ্রেফতারির সিদ্ধান্ত বলে সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে। এর আগেও একাধিকবার শান্তিপ্রসাদ সিনহা ও অশোক সাহাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন গোয়েন্দারা। শান্তিপ্রসাদবাবুর বাড়িতে তল্লাশিতে পাওয়া গিয়েছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ নথি।।

 

বন্ধ করুন