বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌মদন রেজিস্টার্ড মাতাল’‌, খোঁচা শুভেন্দুর, ওঁ কি সাপ্লাই দেয়?‌ কড়া প্রশ্ন মদনের

‘‌মদন রেজিস্টার্ড মাতাল’‌, খোঁচা শুভেন্দুর, ওঁ কি সাপ্লাই দেয়?‌ কড়া প্রশ্ন মদনের

শুভেন্দু অধিকারী।

আগেও একবার মদনকে মাতাল বলে কটাক্ষ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তখন মদন মিত্র দাবি করেছিলেন, শিশিরবাবুর হাতেই তাঁর মদ্যপান হাতেখড়ি।

‘‌মদ্যপানের বিরুদ্ধে যারা তাদের মাথায় পড়ুক বাজ’‌—কার্যত এমন মেজাজেই সরগরম হয়ে উঠল রাজ্য– রাজনীতি। এবার আবার মদন মিত্রকে মাতাল বলে আক্রমণ করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাল্টা কড়া জবাব দিলেন কামারহাটির বিধায়কও। আগেও একবার মদনকে মাতাল বলে কটাক্ষ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তখন মদন মিত্র দাবি করেছিলেন, শিশিরবাবুর হাতেই তাঁর মদ্যপান হাতেখড়ি।

ঠিক কী বলেছেন শুভেন্দু অধিকারী?‌ এদিন মদন মিত্রকে নিয়ে প্রশ্ন করায় বিরোধী দলনেতা বলেন, ‘মদন হলেন পশ্চিমবঙ্গের রেজিস্টার্ড মাতাল। ওকে নিয়ে কিছু বলার নেই।’ এই ভাষাতেই তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়কের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন শুভেন্দু। এই মন্তব্য করার পর শোরগোল পড়ে যায় রাজ্য–রাজনীতিতে। চর্চাও হয় বিস্তর।

তবে ছেড়ে দেওয়ার পাত্র মদনও নন। কী বলেছেন কামারহাটির বিধায়ক?‌ শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করার হুঁশিয়ারি দিয়ে মদন বলেন, ‘‌সীমা ছাড়িয়েছেন শুভেন্দু। শুভেন্দুর ডিএনএ টেস্ট করুন। তারপরই বলা যাবে, ও কেন এমন বলে। শুভেন্দু কি আমার মদ খাওয়ার সময় থাকে? না সাপ্লাই দেয়?’‌ এই আকচা–আকচিতে হাসির রোল ওঠে রাজ্যবাসীর মধ্যে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার খিদিরপুরে গিয়েছিলেন পরিবহন নিগমের চেয়ারম্যান মদন মিত্র। সেখানে ট্রাম লাইনের একটি তারের উপর গাছ পড়ে গিয়েছিল আমফানের সময়। তাই বন্ধ ছিল ট্রাম চলাচল। সেখানে গিয়ে মদন দাবি করেন, ট্রাম বন্ধ হওয়ায় জন্য দায়ী বিজেপি বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। এই বিষয়ে প্রশ্ন করতেই শুভেন্দু খোঁচা দেন মদনকে। আর মদন কড়া জবাব দেন।

বন্ধ করুন