বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Tala Pratay: বিশাল প্রতিমা পুজোমণ্ডপেই নিরঞ্জন হল, কৃত্রিম জলাশয় তৈরি করল কোন পুজো কমিটি?

Tala Pratay: বিশাল প্রতিমা পুজোমণ্ডপেই নিরঞ্জন হল, কৃত্রিম জলাশয় তৈরি করল কোন পুজো কমিটি?

নিরঞ্জন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হল এক অভিনব পদ্ধতির মধ্য দিয়ে।

অভিনব প্রতিমা নিরঞ্জনের সঙ্গে ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। এই অভিনব বিসর্জনের সাক্ষী থাকল মহানগরী। বড় পুজো এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আগামী দিনে আরও কিছু পুজো এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এভাবেই সচেতনতা বাড়লে গঙ্গার দূষণ কমবে এবং একটা দিন আসবে যখন প্রতিটি পুজো কমিটিই এভাবে প্রতিমা নিরঞ্জন করবে।

পরিবেশ দূষণ নিয়ে অনেক সেমিনার থেকে সভা হয়েছে। এগুলি সবই হয় মানুষকে সচেতন করার জন্য। তাতেও সম্পূর্ণ শেষ করা যায়নি পরিবেশ দূষণকে। তবে আগের থেকে একটু কমেছে। তাই মানুষের আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন। এই পরিস্থিতিতে উত্তর কলকাতার টালা প্রত্যয়ের দুর্গাপুজোয় এবারের নিরঞ্জন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হল এক অভিনব পদ্ধতির মধ্য দিয়ে।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ ইন্ডিয়া গ্রিন রিয়েলিটি লিমিটেড একটি সংস্থা। যারা কাজ করে চলেছে পরিবেশ রক্ষার বার্তা দিয়ে। পরিবেশ দূষণ, গ্লোবাল ওয়ার্মিং—এখন মানুষের জীবনে সমস্যার মূল কারণ। তাই এই সংস্থার দায়–দায়িত্ব এসে দাঁড়ায় পরিবেশ রক্ষায়। সবেমাত্র দুর্গাপুজো শেষ হয়েছে। আর তারপরই দুর্গাপুজো কমিটি টালা প্রত্যয় এবং তাদের শিল্পী সুশান্ত পাল এবছর অভিনবভাবে বিসর্জনের কথা ভেবেছেন। আর সেখানে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন এই সংস্থাটি।

কেমন করে হল নিরঞ্জন প্রক্রিয়া?‌ টালা প্রত্যয় পুজো কমিটি সূত্রে খবর, এই প্রথমবার প্রতিমা বিসর্জন হল পুজো মণ্ডপেই। ৪৩ ফুটের বিশাল প্রতিমা নিরঞ্জন করতে কৃত্রিম জলাশয় তৈরি করা হয়। আর জলকামানের মাধ্যমে প্রতিমা গলিয়ে ফেলা হয় সেই জলাশয়ে। পরিবেশ দূষণ রক্ষায় অভিনব এই বিসর্জন দেখতে মানুষের ঢল নামে পুজো মণ্ডপে। এই নিরঞ্জন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কলকাতা পুরসভা এবং দমকল বিভাগ। গঙ্গাকে দূষণের হাত থেকে বাঁচাতেই এই অভিনব ভাবনা বলে জানানো হয়েছে।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ এই অভিনব প্রতিমা নিরঞ্জনের সঙ্গে ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। এই অভিনব বিসর্জনের সাক্ষী থাকল মহানগরী। এই একটা বড় পুজো এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আগামী দিনে আরও কিছু পুজো এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এভাবেই সচেতনতা বাড়লে গঙ্গার দূষণ কমবে এবং একটা দিন আসবে যখন প্রতিটি পুজো কমিটিই এভাবে প্রতিমা নিরঞ্জন করবে। এটাই মনে করছে টালা প্রত্যয়। অর্থাৎ পরিবেশ বাঁচিয়ে নিজেদের বাঁচানোর বার্তাই দিল টালা প্রত্যয়।

বন্ধ করুন