বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আবেদন করলে বাড়ির কাছের স্কুলে পোস্টিং পাবেন কর্মরত শিক্ষকরাও, জানালেন পার্থ
পার্থ চট্টোপাধ্যায। ফাইল ছবি

আবেদন করলে বাড়ির কাছের স্কুলে পোস্টিং পাবেন কর্মরত শিক্ষকরাও, জানালেন পার্থ

মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে যোগ করে এদিন পার্থবাবু বলেন, ‘নতুন নিয়োগে বাড়ির কাছে স্কুলে পড়ানোর অগ্রাধিকার তো মিলবেই।

শুধু নিজের জেলাতেই নয়, এবার থেকে শিক্ষক – শিক্ষিকাদের পোস্টিং হবে বাড়ির কাছে স্কুলে। নতুন যাদের নিয়োগ হবে তাদের ক্ষেত্রে তো বটেই, চাকরিরতদের ক্ষেত্রেও বদলিতে অগ্রাধিকার পাবে কাছের স্কুল। সরস্বতী পুজোর দিন রাজ্যের শিক্ষকদের এমনই খুশির খবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির কাছের স্কুলে বদলির দাবি জানিয়ে আসছিলেন বহু শিক্ষক। কিন্তু পদ্ধতিগত কারণে হাতে গোনা শিক্ষকই এখনো সেই সুবিধা পেয়েছেন। বহু ক্ষেত্রেই শিক্ষকদের দূর দূরান্তে ছুটতে হয়। সেই সমস্যার সমাধানে মঙ্গলবার গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। টুইটে মমতা জানান, ‘এখন সরস্বতী পূজা। শিক্ষক শিক্ষিকাদের সম্মান জানানোর জন্য আদর্শ সময়। রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সুবিধার্থে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাদের নিজের জেলায় পড়ানোর সুযোগ করে দেবে রাজ্য সরকার।’

মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে যোগ করে এদিন পার্থবাবু বলেন, ‘নতুন নিয়োগে বাড়ির কাছে স্কুলে পড়ানোর অগ্রাধিকার তো মিলবেই। সঙ্গে বাড়ির কাছে বদলির সুযোগ পাবেন কর্মরত শিক্ষক শিক্ষিকারাও। আবেদন করলেও তাদেরও বাড়ির কাছের স্কুলে বদলি করা হবে।’

রাজ্যের এই সিদ্ধান্তকে কটাক্ষ করেছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি বলেন, ‘সামনে ভোট। আর তার আগে পায়ের তলায় যে মাটি নেই তা তৃণমূল টের পেয়েছে। এতদিন ধরে শিক্ষকরা কাছাকাছি স্কুলে বদলির দাবি জানিয়ে আসছিলেন। কিন্তু সরকারের কানে ঢোকেনি। এখন ভোট আসতে শিক্ষকদের কথা মনে পড়েছে। বুঝতে পেরেছেন এদের চটিয়ে লাভ নেই।’

সঙ্গে সরস্বতী পুজোয় সরকারের টানা ৫ দিন ছুটি দেওয়াকে কটাক্ষ করেছেন দিলীপবাবু। তাঁর কথায়, ‘একদিকে একের পর এক স্কুলে সরস্বতী পুজো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আরেক দিকে সরস্বতী পুজোয় ৫ দিন ছুটি দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। গাছের গোড়া কেটে আগায় জল ঢেলে লাভ কী?’


বন্ধ করুন