বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'বিষপানে বাধ্য হয়েছি',শিক্ষামন্ত্রীর ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে রাজ্যপালকে নালিশ শিক্ষকদের
ঐক্য মুক্তমঞ্চের শিক্ষকরা গতকাল দেখা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে (ছবি: টুইটার)
ঐক্য মুক্তমঞ্চের শিক্ষকরা গতকাল দেখা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে (ছবি: টুইটার)

'বিষপানে বাধ্য হয়েছি',শিক্ষামন্ত্রীর ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে রাজ্যপালকে নালিশ শিক্ষকদের

  • ঐক্য মুক্তমঞ্চের শিক্ষকরা গতকাল দেখা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে।

বদলির প্রস্তাব স্থগিতের দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়ে শিক্ষক ঐক্য মুক্তমঞ্চের ৫ জন শিক্ষিকা বিকাশ ভবনের সামনেই বিষপান করেছিলেন। সেই ঐক্য মুক্তমঞ্চের শিক্ষকরাই গতকাল দেখা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে। এই কাণ্ডের যাবতীয় দোষ তাঁরা চাপালেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর ঘআড়ে। পাশাপাশি রাজ্যপালের কাছে তাঁদের অভিযোগ, রাজ্য সরকার তাঁদের ‘স্লো-পয়জন’ দিচ্ছে।

এদিন রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শিক্ষকরা বলেন, 'আমরা বিষপান করতে বাধ্য হয়েছি, তার জন্য দায়ী এই শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। যে বদলির নির্দেশ জারি করা হয়েছে তা অবিলম্বে প্রত্যাহার করা হোক, নয়তো আমরা আরও তীব্রতর আন্দোলনে যাব।' তাঁদের হুঁশিয়ারি, 'সরকারের তরফে সঠিক সিদ্ধান্ত না নেওয়া হলে এরপর যা হবে, তার দায়ভার শিক্ষামন্ত্রীর উপর বর্তাবে।'

উল্লেখ্য, আন্দোলনকারী শিক্ষিকাদের দাবি, তাঁদের দক্ষিণ ২৪ পরগনা থেকে উত্তরবঙ্গের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বদলি করা হয়েছে। তাঁদের কাউকে কাউকে বদলি করা হয়েছে কোচবিহারের দিনহাটা এলাকার স্কুলে। কিন্তু তাঁরা যা বেতন পান তাতে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা থেকে অতদূরে গিয়ে চাকরি করতে যাওয়া সম্ভব নয়। এই বদলি প্রস্তাব স্থগিত রাখতে হবে।

নিজেদের দাবি তুলে ধরে কয়েকদিন আগে কয়েকজন শিক্ষিকা বিকাশ ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে পুলিশ তাঁদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। এরপরেই ৫ শিক্ষিকা বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে ৫ শিক্ষিকার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে শিখা দাস, জোৎস্না টুডু, পুতুল জানা মণ্ডল, ছবি দাস ও অনিমা নাথকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বন্ধ করুন