বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বামেদের বনধের দিনই বিজেপির কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল তারাতলায়

বামেদের বনধের দিনই বিজেপির কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল তারাতলায়

বৃহস্পতিবার তারাতলায় বিজেপি কর্মীদের গ্রেফতার করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। 

বিজেপি কর্মীদের জমায়েতের দিকে প্রথমে এগিয়ে আসে পুলিশের একটি গাড়ি। বিজেপি কর্মীরা পিছোতে অস্বীকার করলে বচসা বাঁধে। এর পর বিজেপি কর্মীরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে যান। পালটা লাঠি চালায় পুলিশ।

বামেদের বনধের দিনই বিজেপির কর্মসূচি ঘিরে ধুন্ধুমার বাঁধল দক্ষিণ কলকাতার তারাতলায়। এদিন মাঝেরহাট সেতু দ্রুত চালু করার দাবিতে সেখানে মিছিল করার কথা ছিল বিজেপির। মিছিলে নেতৃত্ব দেওয়ার কথা ছিল বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র। অভিযোগ, বিজেপি কর্মীরা সেখানে জমায়েত হতে শুরু করলেই তাদের ওপর হামলা করে পুলিশ। পালটা বিজেপির বিরুদ্ধে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় তাদের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি বিজেপির। 

মাঝেরহাট সেতু দ্রুত চালু করার দাবিতে বৃহস্পতিবার তারাতলা মোড় থেকে মাঝেরহাট পর্যন্ত মিছিল করার কথা ছিল বিজেপির। সেজন্য এদিন তারাতলা মোড়ে জমায়েত হতে থাকেন প্রচুর বিজেপি কর্মী সমর্থক। বেলা ১.৩০ মিনিট নাগাদ মিছিল শুরুর তোড়জোড় তখন চরমে। তবে কৈলাস বিজয়বর্গীয় সেখানে এসে পৌঁছননি তখনও। অভিযোগ, সেই সময় জমায়েত হওয়া বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালায় পুলিশ। 

বিজেপি কর্মীদের জমায়েতের দিকে প্রথমে এগিয়ে আসে পুলিশের একটি গাড়ি। বিজেপি কর্মীরা পিছোতে অস্বীকার করলে বচসা বাঁধে। এর পর বিজেপি কর্মীরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে যান। পালটা লাঠি চালায় পুলিশ। অভিযোগ, তখন পুলিশকে লক্ষ্য করে পালটা ইট ছোড়ে বিজেপি। 

পুলিশের তাড়া খেয়ে বেশ কিছু বিজেপিকর্মী আসেপাশের গলিগুলিতে ঢুকে পড়েন। এরই মধ্যে ধরপাকড় শুরু করে পুলিশ। বিজেপি কর্মীদের গ্রেফতার করে তোলা হয় বেশ কয়েকটি বাসে। প্রায় ১০ মিনিট ধরে ধুন্ধুমার চলে তারাতলা মোড়ে। তার পর গোটা মোড়ের দখল নেয় পুলিশ।

বিজেপির দাবি, তাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে বিনা প্ররোচনায় লাঠি চালিয়েছে পুলিশ। 

 

বন্ধ করুন