বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাজভবনের অনুমোদন আসেনি, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মেয়াদ বৃদ্ধিতে রাজ্য
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় (ফাইল ছবি)
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় (ফাইল ছবি)

রাজভবনের অনুমোদন আসেনি, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মেয়াদ বৃদ্ধিতে রাজ্য

  • বিগত দিনে রাজ্যপালের সঙ্গে উপাচার্যের সংঘাতকে ঘিরে নানা চর্চা হয়েছিল

আরও দুবছর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে থাকতে পারবেন সুরঞ্জন দাস। মঙ্গলবার শিক্ষাদফতর বিজ্ঞপ্তি জারি করে তাঁর কার্যকালের মেয়াদ আরও দুবছর বৃদ্ধি করেছে। প্রসঙ্গত চলতি সপ্তাহের মঙ্গলবার ২৩শে জুন তাঁর মেয়াদের শেষ দিন ছিল। সেদিনই তাঁর মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে।

শিক্ষা দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, দিন কয়েক আগেই সুরঞ্জন দাসের মেয়াদ বৃদ্ধির ব্যাপারে রাজ্যপালের কাছে অনুমোদন চেয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল রাজ্য। কিন্তু রাজ্যপালের অফিস থেকে সেব্য়াপারে কোনও সবুজ সংকেত মেলেনি। এদিকে মঙ্গলবারই তাঁর কার্যকালের মেয়াদ শেষ হয়ে যেত। সেকারণে রাজ্যই তাঁর মেয়াদ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিকে ২০১৯ সালের জুন মাসেও তাঁর কার্যকালের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছিল। এবারও তাঁর মেয়াদ বৃদ্ধি করা হল। প্রসঙ্গত ২০১৫ সাল থেকেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের চেয়ারে রয়েছেন সুরঞ্জন দাস। এদিকে রাজ্যপালের তরফ থেকে তাঁর মেয়াদ বৃদ্ধি সংক্রান্ত কোনও অনুমোদন না আসায় নানা চর্চা শুরু হয়েছে। প্রশ্ন উঠছে অতীতের একাধিক মনোমালিন্যের ঘটনার প্রভাবও কি এক্ষেত্রে কার্যকরী হল?

বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্দরমহল সূত্রে খবর, রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের সংঘাত বিগত দিনে চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল। সেই সময় বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এদিকে পরিস্থিতি সামাল দিতে বলা ভালো বাবুল সুপ্রিয়কে ঘেরাও মুক্ত করতে সেদিন সেখানে খোদ রাজ্যপাল চলে গিয়েছিলেন। এরপর উপাচার্যকেও ডেকে পাঠিয়েছিলেন রাজ্যপাল। কিন্তু তিনি যাননি।

 

বন্ধ করুন