বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > এবার ‘‌তৃণমূলের লোক’‌ বলে শোভন–বৈশাখীর বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন কলকাতার বিজেপি সভাপতি
শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

এবার ‘‌তৃণমূলের লোক’‌ বলে শোভন–বৈশাখীর বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন কলকাতার বিজেপি সভাপতি

  • সম্প্রতি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে কলকাতার পর্যবেক্ষক বা অবজারভার করেছে বিজেপি। আর তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সহ–আহ্বায়ক করা হয়েছে।

সম্প্রতি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে কলকাতার পর্যবেক্ষক বা অবজারভার করেছে বিজেপি। আর তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সহ–আহ্বায়ক করা হয়েছে। এবার নাম না করে তাঁদের দু’‌জনকেই আক্রমণ করলেন কলকাতা জেলা বিজেপি–র সভাপতি শঙ্কর শিকদার। আর তাঁর মন্তব্যে উঠে এসেছে আদি ও নব্য বিজেপি–র দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গ।

সম্প্রতি এক ভিডিও–তে দেখা গিয়েছে, দলেরই এক মহিলা কর্মীর সঙ্গে বচসা করছেন কলকাতা জেলা বিজেপি–র সভাপতি শঙ্কর শিকদার। ওই মহিলা দাবি করেন, ‘‌সিপিএম কর্মীদের বিজেপি–তে এনে বড় বড় পদ দেওয়া হচ্ছে।’‌ তখনও ওই মহিলাকে কারও নাম না নিয়ে শঙ্কর শিকদার বলেন, ‘‌জানেন কলকাতার পর্যবেক্ষক কে? জানেন কাকে সহ পর্যবেক্ষক করা হয়েছে? এরা সব তৃণমূলের লোক। দলে ঢুকে বসে রয়েছে।’‌

ইতিমধ্যে এই ভিডিও চোখে পড়েছে বৈশাখীর। তিনি এই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘‌নির্বুদ্ধিতার কারণে বা রাজনৈতিক দূরদর্শিতা না থাকায় এমন মন্তব্য করেছে। এই মন্তব্যে দলেরই ক্ষতি হবে। এতে দল দুর্বল হবে। এভাবে কি প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়াই করা সম্ভব?‌’‌ বৈশাখীর মতে, ‘‌দলে শৃঙ্খলা মেনে চলা উচিত। অনুশাসন থাকা উচিত যেমন একটা পরিবারে থাকে।’ শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী এদিন পরিষ্কার জানিয়েছেন, ‘‌এ ধরণের কথা ফের কানে এলে উর্ধ্বতন নেতৃত্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে বাধ্য হব।’‌

উল্লেখ্য, এর আগেও কলকাতা পুরসভার ১৩১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছিলেন শঙ্কর শিকদার। তিনি বলেছিলেন, ‘‌এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সিন্ডিকেট চালান। গুন্ডাদের প্রশয়ও দেন।’‌ আর এর পরই এ নিয়ে সে সময় অন্য মাত্রায় পৌঁছেছিল বিতর্ক। যদিও সেটা সময়ের সঙ্গে ধামাচামা পড়ে যায়। কিন্তু এবার ফের শোভনের বিরুদ্ধেই সুর চড়ালেন শঙ্কর।

বন্ধ করুন