বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাজ্যপালের বিরুদ্ধে লোকসভার অধ্যক্ষের কাছে নালিশ করলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ
ধনখড়ের বিরুদ্ধে বিধানসভার অভ্যান্তরীণ কাজে হস্তক্ষেপের অভিযোগ : ছবি (‌সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)‌ (Samir Jana/HT Photo)
ধনখড়ের বিরুদ্ধে বিধানসভার অভ্যান্তরীণ কাজে হস্তক্ষেপের অভিযোগ : ছবি (‌সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)‌ (Samir Jana/HT Photo)

রাজ্যপালের বিরুদ্ধে লোকসভার অধ্যক্ষের কাছে নালিশ করলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ

  • ধনখড়ের বিরুদ্ধে বিধানসভার অভ্যান্তরীণ কাজে হস্তক্ষেপের অভিযোগে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লার কাছে নালিশ জানালেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দোপাধ্যায়

রাজ্যপালের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে নামলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ। তুললেন একাধিক অভিযোগ। রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের বিরুদ্ধে বিধানসভার অভ্যান্তরীণ কাজে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুললেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দোপাধ্যায়। এছাড়াও রাজ্যপালের বিরুদ্ধে বিল আটকে রাখার অভিযোগ তুলেছেন তিনি। এই অভিযোগ তুলে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লার কাছে নালিশ জানিয়েছেন তিনি। এই দ্বন্দ্ব ঘিরে রাজ্য-‌রাজ্যপাল সংঘাত আবারও তুঙ্গে উঠল। এদিন রাজ্যপালের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলেছেন বিমান বন্দোপাধ্যায়।

তাঁর মূল অভিযোগ, বিধানসভার প্রশাসনিক কাজে হস্তক্ষেপ করছেন রাজ্যপাল। এছাড়াও রাজ্যপালের বিরুদ্ধে বিল আটকে রাখার অভিযোগ তুলেছেন তিনি।‌ স্পিকারদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন, বিধানসভায় রাজ্যপালের এক্তিয়ার নেই, উপরন্তু অধ্যক্ষের এক্তিয়ার রয়েছে। সেক্ষেত্রে কোনও বিল পাশ করে রাজ্যপালের কাছে পাঠালেও, সেই বিলে সই না করেই ফেরত পাঠিয়ে দিচ্ছেন রাজ্যপাল। ফলে, বিলগুলো বকেয়া রয়ে যাচ্ছে। আর সেই বকেয়া বিলের পাহাড় জমছে বিধানসভায়।

এমনকী, এদিন ভোটে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকার বিরুদ্ধেও খড়গহস্ত হয়েছেন বিধানসভার অধ্যক্ষ। ক্ষোভপ্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘‌ ২০২০ সালে করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজ্যের ৮ জন বিধায়ক মারা গিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ২ জন বিধায়কের এই একই কারণে মৃত্যু হয়। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় কম দফায় ভোট করানোর জন্য আবেদন করেছিলেন, কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়েছিল। তাই ৮ দফা নির্বাচন করানোর জন্যই এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

২০১৯ সালে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এরাজ্যের দায়িত্বে আসার পর থেকে রাজ্যের সঙ্গে সংঘাত কম হয়নি। যত দিন গড়িয়েছে, রাজ্য ও রাজ্যপালের দ্বন্দ্ব ততই জোরদার হয়েছে। রাজ্যের যেকোনও ইস্যু নিয়ে টুইটে তোপ দাগতে ছাড়েননি রাজ্যপাল। আবার রাজ্যের পক্ষে হয়ে বিভিন্ন সময় তৃণমূলের নেতা-‌নেত্রীরা রাজ্যপালের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন।

 

বন্ধ করুন