বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > TMC On Durga Puja: দুর্গাপুজোয় নেতা–কর্মীদের একগুচ্ছ ‘টাস্ক’ তৃণমূলের, প্রতিটি জেলায় পৌঁছল নির্দেশ
তৃণমূল কংগ্রেস। (ছবি, সৌজন্যে এএনআই)

TMC On Durga Puja: দুর্গাপুজোয় নেতা–কর্মীদের একগুচ্ছ ‘টাস্ক’ তৃণমূলের, প্রতিটি জেলায় পৌঁছল নির্দেশ

  • সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই বিজেপি ইডি–সিবিআই লাগিয়ে রাজ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করেছে। এই পরিবেশকে মোকাবিলা করতে গেলে সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে হবে। তাছাড়া বছর ঘুরতেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। তাই জনসংযোগ করে বিজেপিকে ঠেকাতে হবে। তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন এমনিতেই মজবুত।

দুর্গাপুজোয় নেতা–মন্ত্রীদের ছুটি বাতিল করে দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজ নিজ এলাকায় থাকার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। দুর্গাপুজোয় বাইরে বেড়াতে যাওয়া চলবে না। এবার আরও একগুচ্ছ নির্দেশ দেওয়া হল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তৃণমূলের নেতা থেকে শুরু করে ব্লক স্তরের কর্মীদেরও। দুর্গাপুজোয় মানুষের সঙ্গে বেশি করে জনসংযোগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রতিটি জেলার নেতা–কর্মীকে। নতুন করে সংগঠনের মাটি শক্ত করতে এই নির্দেশ দিল তৃণমূল কংগ্রেস বলে মনে করা হচ্ছে।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে এবারে সেপ্টেম্বর মাসের শুরু থেকেই দুর্গাপুজোর উৎসবের ঢাকে কাঠি পড়েছে। ইউনেস্কোর পক্ষ থেকে বাংলার দুর্গাপুজো বিশেষ স্বীকৃতি পাওয়ার পরই মাসভর উৎসব যাপনের ডাক দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, দলের সাংগঠনিক ভীত নতুন করে শক্ত করতে দুর্গাপুজোর মরসুমকে কাজে লাগাতে চাইছে শাসকদল। দুর্গাপুজোর মরসুমকে জনসংযোগে পুরোপুরি ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

কেমন করে চলবে জনসংযোগ? তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, দুর্গাপুজোয় রোজ নিজের এলাকার সমস্ত পুজো মণ্ডপ পরিদর্শন করতে হবে। দলীয় নেতাদের পাশাপাশি এই নির্দেশ পেয়েছেন বিধায়ক, সাংসদ, মন্ত্রী এবং পুর–প্রধানরা। সব বিধায়ক–সাংসদ এবং দলের শীর্ষ নেতাদের সারাদিন বিভিন্ন ক্লাবে থাকতে হবে। আর নীচুস্তরের নেতা–কর্মীরা এলাকায় গিয়ে সময় কাটাবেন। সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলতে হবে। নিজের এলাকায় গড়ে তুলতে হবে নিবিড় জনসংযোগ।

কেন হঠাৎ এই নির্দেশ? সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই বিজেপি ইডি–সিবিআই লাগিয়ে রাজ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করেছে। এই পরিবেশকে মোকাবিলা করতে গেলে সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে হবে। তাছাড়া বছর ঘুরতেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। তাই জনসংযোগ করে বিজেপিকে ঠেকাতে হবে। তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন এমনিতেই মজবুত। সেটাকে আরও মজবুত করতেই এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মানুষকে বোকা বানিয়ে যাতে বিজেপি ভোট নিতে না পারে তাই নতুন করে জনসংযোগে জোর দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন