বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মণীশ শুক্লকে খুন করতে বাংলাদেশ থেকে আনা হয়েছিল শ্যুটারদের, দাবি কৈলাসের
বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। 
বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। 

মণীশ শুক্লকে খুন করতে বাংলাদেশ থেকে আনা হয়েছিল শ্যুটারদের, দাবি কৈলাসের

  • সঙ্গে তিনি বলেন, এতদিন রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠত। কিন্তু তৃণমূল জমানায় পশ্চিমবঙ্গে আমলাদের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে। যা সত্যিই উদ্বেগের।

বিজেপি নেতা মণীশ শুক্ল খুনে বাংলাদেশ থেকে শার্প শ্যুটারদের আনা হয়েছিল বলে দাবি করলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। বৃহস্পতিবার একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন বাংলাদেশ থেকে শার্প শ্যুটারদের এনেছিল তৃণমূল। এই ঘটনায় ফের এদিন সিবিআই তদন্ত দাবি করেন তিনি। 

কৈলাসের দাবি, বাংলাদেশে চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত তৃণমূল কংগ্রেস। তাই সেদেশের দুষ্কৃতীদের সঙ্গে ভাল পরিচয় রয়েছে তৃণমূল নেতাদের। সেখান থেকে দুষ্কৃতীদের এনে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি নেতাদের খুন করার চেষ্টা হচ্ছে। মণীশ শুক্ল খুনেও তাই হয়েছে। 

সঙ্গে তিনি বলেন, এতদিন রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠত। কিন্তু তৃণমূল জমানায় পশ্চিমবঙ্গে আমলাদের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে। যা সত্যিই উদ্বেগের। 

কৈলাস বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির নেতাকর্মীরা এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতির মধ্যে কাজ করছেন। সেখানে বিজেপি নেতাদের খুন করতে বাংলাদেশ থেকে শ্যুটারদের ডাকা হচ্ছে। বিজেপি নেতাকর্মীদের খুন করে ঝুলিয়ে দিয়ে আত্মহত্যা বলে চালানো হচ্ছে।’

পালটা তৃণমূলের উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘মধ্যপ্রদেশের নেতা কৈলাস বাংলার ভৌগলিক অবস্থান বোঝেন না। তাছাড়া সীমান্তের ভার কেন্দ্রীয় সংস্থা BSF-এর। অনুপ্রবেশ হলে তার দায় কেন্দ্রের।’

গত ৪ অক্টোবর টিটাগড়ে মণীশ শুক্ল খুনের পর থেকেই ওই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে এসেছে বিজেপি। রাজ্য সরকার ঘটনার তদন্তভার CID-র হাতে তুলে দেওয়ার পর সুবোধ সিং নামে বিহারের এক দুষ্কৃতীকে জেরা করতে সেখানে গিয়েছিলেন গোয়েন্দারা। কিন্তু ফিরতে হয়েছে খালি হাতে। 

 

বন্ধ করুন