বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পূর্ত দফতর ঠিক মতো কাজ করছে না, বিধানসভার অন্দরে সুর চড়ালেন তৃণমূল বিধায়ক
পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা। ফাইল ছবি
পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা। ফাইল ছবি

পূর্ত দফতর ঠিক মতো কাজ করছে না, বিধানসভার অন্দরে সুর চড়ালেন তৃণমূল বিধায়ক

  • জবাবে মলয় ঘটক বলেন, ‘২৬ কোটি টাকা ব্যায়ে ওই সেতু তৈরি হচ্ছে। নির্দিষ্ট সূচি মেনেই সেতুর কাজ এগোচ্ছে’।

সরকারি প্রকল্পের দুলকি চালে বিধানসভার অন্দরে ক্ষোভ উগরে দিলেন শাসকদলেরই বিধায়ক। যা নিয়ে বেজায় অস্বস্তিতে রাজ্যের তৃণমূল সরকার। কোনওক্রমে পরিস্থিতি সামলালেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ঘটনায় ফের শাসকদলের অন্দরের অসন্তোষ প্রকাশ্যে এসে পড়েছে বলে মনে করছেন অনেকে।

শনিবার বিধানসভার অধিবেশন ছিল বিরোধীশূন্য। বিধানসভায় ছিলেন শুধু তৃণমূল বিধায়করা। তা সত্বেও মুখ পুড়ল সরকারের। সরকারের বিরুদ্ধে সেতু নির্মাণে ঢিলেমির অভিযোগ তুললেন মুর্শিদাবাদের কান্দির বিধায়ক অপূর্ব সরকার। এদিন বিধানসভায় দৃষ্টি আকর্ষণী পর্বে তিনি বলেন, আমার ওখানে একটা সেতুর কাজ ৯ মাস ধরে আটকে রয়েছে। সংযোগকারী রাস্তার কাজও এগোচ্ছে না। কেন সরকারি প্রকল্পে এই ঢিলেমি তা পূর্তমন্ত্রী মলয় ঘটকের কাছে জানতে চান তিনি।

জবাবে মলয় ঘটক বলেন, ‘২৬ কোটি টাকা ব্যায়ে ওই সেতু তৈরি হচ্ছে। নির্দিষ্ট সূচি মেনেই সেতুর কাজ এগোচ্ছে’। মলয়বাবুর এই মন্তব্যের বিরোধিতা করে অপূর্ববাবু বলেন, ‘আপনার দফতর হয়তো কাজ করছে না।’ সঙ্গে সঙ্গে অপূর্ববাবুকে থামিয়ে স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘এটা প্রিভিলেজ হতে পারে। এটা বাদ দিতে হবে।’

প্রশ্ন উঠছে, কেন বিধানসভার অন্দরে শাসকদলের বিধায়কের মন্তব্যকে ‘প্রিভিলেজ’-এর আশঙ্কায় বাদ দিতে হচ্ছে স্পিকারকে? তাহলে কি মন্ত্রী ও বিধায়কের মধ্যে কেউ বিধানসভার ভিতরে অসত্য বলছেন?

 

বন্ধ করুন