বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌এই পরামর্শগুলি উনি যেন উত্তরপ্রদেশে দেন’‌, রাজ্যপালের মন্তব্যে আক্রমণ ফিরহাদের
ফিরহাদ হাকিম। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
ফিরহাদ হাকিম। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

‘‌এই পরামর্শগুলি উনি যেন উত্তরপ্রদেশে দেন’‌, রাজ্যপালের মন্তব্যে আক্রমণ ফিরহাদের

  • গতকাল অজানা জ্বরে শিশু মৃত্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে আগ বাড়িয়ে চিঠি লিখেছেন শুভেন্দু অধিকারী।

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর পর রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। অজানা জ্বরে শিশু মৃত্যু নিয়ে সরব হলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তাঁর প্রতিক্রিয়া, একাধিকবার বলা হয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোয় জোর দিতে। মুহূর্তের মধ্যে পাল্টা রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম তোপ দাগেন, উত্তরপ্রদেশে গিয়ে রাজ্যপালের পরামর্শ দেওয়া উচিত। যেখানে অক্সিজেনের অভাবে শিশুদের প্রাণ যায়। ব্যস, লেগে গেল রাজভবন–নবান্ন সংঘাত।

আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ৭১তম জন্মদিন। তাই রাজভবনের উদ্যানে শুক্রবার বৃক্ষরোপণ করেন রাজ্যপাল। তখনই তিনি উদ্বেগপ্রকাশ করে বলেন, ‘‌আমি একাধিকবার এই বিষয়ে দৃষ্টিআকর্ষণ করেছি। রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবায় আরও জোর দেওয়া দরকার। বাচ্চাদের স্বাস্থ্যের সঙ্গে যুক্ত পরিষেবাগুলিতে নজরদারির প্রয়োজন। আমি আশা করব, রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো সুদৃঢ় হবে।’‌

এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে পাল্টা পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘‌রাজ্যেপাল মহোদয়কে বলব এই পরামর্শগুলি উনি যেন উত্তরপ্রদেশে দেন। যেখানে ১৬টা বাচ্চা অক্সিজেনের অভাবে মারা গিয়েছে। যেখানে শ্মশানের অভাবে গঙ্গায় দেহ ভাসিয়ে দেওয়া হয়। সেই জায়গায় উনি একটু বেশি করে পরামর্শ দিন। আমাদের এখানে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ঠিকই আছে।’‌ যোগীর রাজ্যের কেচ্ছা সামনে নিয়ে আসায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। রাজ্যপালকে বার্তা দিতেই এই মন্তব্য করেছেন তিনি বলে মনে করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গতকাল অজানা জ্বরে শিশু মৃত্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে আগ বাড়িয়ে চিঠি লিখেছেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যে বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল পাঠাতে আর্জি জানান। রাতে পুরুলিয়া মেডিকেল কলেজে গিয়ে রাজ্য সরকারের পরিকাঠামো নিয়ে সমালোচনা করেন। ফেসবুকে পোস্ট করেন সেইসব কথা। এবার সেই পথে হাঁটলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

বন্ধ করুন