বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Manik Bhattacharya: বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী–পুত্র কোথায়?‌ তিনটি বাড়িই এখন তালাবন্ধ

Manik Bhattacharya: বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী–পুত্র কোথায়?‌ তিনটি বাড়িই এখন তালাবন্ধ

মানিক ভট্টাচার্য।

মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী শতরূপা দেবীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে তিন কোটি টাকার হদিশ মিলেছে। এমনকী মানিকবাবুর মেয়ে, জামাই এবং মেয়ের শ্বশুরের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টেরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। কারণ এই বিধায়কের পরিবারের সদস্য–আত্মীয়দের সঙ্গে যৌথ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে কোটি কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে বলে ইডির দাবি।

জেলে যাওয়ার আগে তিনি নিখোঁজ বলে শোরগোল পড়েছিল। পরে তিনি নিজেই জানান, তাঁর খোঁজ আছে। তিনি কলকাতাতেই আছেন। এবার তাঁর স্ত্রী–পুত্রের খোঁজ মিলছে না। এখন তিনি জেলে। হ্যাঁ, তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের পলাশীপাড়ার বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্য। তাঁদের যাদবপুরের দু’টি বাড়ি এখন তালাবন্ধ। আবার নাকাশিপাড়ার বাড়িতেও মানিকবাবুর স্ত্রী–পুত্র নেই। প্রাথমিক টেট–দুর্নীতির মামলায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অপসারিত সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য এখন জেলে। এখন তাঁর স্ত্রী–পুত্রকে খুঁজছেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (‌ইডি)‌

ইডি সূত্রে খবর, তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যের ছেলে সৌভিককে একাধিকবার তলব করা হলেও তিনি ইডি’‌র মুখোমুখি হচ্ছেন না। এমনরী মানিকের স্ত্রী শতরূপা ভট্টাচার্যকেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে ইডি’‌র অভিযোগ। মানিকের ছেলের দু’টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের একটিতে দু’কোটি ৬৪ লক্ষ এবং অন্যটিতে দু’কোটি ৪৭ লক্ষ টাকা পাওয়া গিয়েছে। এই বিপুল পরিমাণ টাকার বিষয়ে সৌভিককে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান তদন্তকারীরা।

আবার মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী শতরূপা দেবীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে তিন কোটি টাকার হদিশ মিলেছে। এমনকী মানিকবাবুর মেয়ে, জামাই এবং মেয়ের শ্বশুরের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টেরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। কারণ এই বিধায়কের পরিবারের সদস্য–আত্মীয়দের সঙ্গে যৌথ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে কোটি কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে বলে ইডির দাবি। তবে মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী–পুত্রের মোবাইল ফোনেও পাওয়া যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে তাঁদের পলাতক বলে জানিয়ে গ্রেফতার করার জন্য আদালতে পরোয়ানা জারি করার আবেদন করতে চাইছে ইডি বলে সূত্রের খবর।

এই বিষয়ে মানিক ভট্টাচার্যকে ইডি জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কিনা তা জানা যায়নি। এখন মানিক ভট্টাচার্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে মানিকবাবুর স্ত্রী–পুত্রকে না পাওয়া নিয়ে বিধায়কের আইনজীবী সঞ্জয় দাশগুপ্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি বলেন, ‘‌এটি সম্পূর্ণ তদন্তের বিষয়।’‌ কিন্তু তদন্ত করে তো তাঁদের পাওয়া যাচ্ছে না। এখন দেখার শেষপর্যন্ত জল কোনদিকে গড়ায়।

বন্ধ করুন