বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Exclusive Story: উদয়ন গুহ–অভিষেক বন্দোপাধ্যায় আলাদা বৈঠক, মন্ত্রী হচ্ছেন দিনহাটার বিধায়ক?
উদয়ন গুহ, তৃণমূল বিধায়ক, দিনহাটা

Exclusive Story: উদয়ন গুহ–অভিষেক বন্দোপাধ্যায় আলাদা বৈঠক, মন্ত্রী হচ্ছেন দিনহাটার বিধায়ক?

  • মন্ত্রিসভা থেকে সরানো হতে পারে সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে। তাঁকে ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক সাংগঠনিক জেলার সভাপতি করা হয়েছে। তাঁর জায়গায় পাঁশকুড়া পূর্বের বিধায়ক বিপ্লব রায়চৌধুরীকে মন্ত্রিসভায় আনা হতে পারে। আর স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী করা হতে পারে বিপ্লবকে।

আগামীকাল, বুধবার মন্ত্রিসভায় রদবদল হবে। এই কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এখন থেকে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কে মন্ত্রী হবেন, আর কে বাদ যাবেন তা নিয়ে অনেক হিসেব–নিকেশ করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে গিয়ে বৈঠক করলেন দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ। এই পৃথক বৈঠকের পর থেকেই তিনি মন্ত্রী হতে পারেন বলে তুঙ্গে চর্চা।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ সূত্রের খবর, সোমবার রাতে দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ পৃথক হৈঠক করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে। সেখানে তিনি নিজের মন্ত্রীত্বের পক্ষে সওয়াল করেন। দিনহাটা থেকে যখন তিনি জিতেছিলেন তখন গুঞ্জন শুরু হয় মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভূক্ত হওয়ার। কিন্তু তখন বিধানসভায় এসে শপথ নিয়েই ফিরেছিলেন। এবার তাঁর ভাগ্যে শিঁকে ছিঁড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। চার–পাঁচজনকে মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে দলের কাজে ব্যবহার করা হবে। মন্ত্রিসভায় অন্তত ৭ থেকে ৮টি নতুন মুখ আসতে পারে।

নতুন মুখের তালিকায় কারা?‌ মঙ্গলবার নবান্ন এবং রাজভবন সূত্রে খবর, বাবুল সুপ্রিয়, উদয়ন গুহ, পার্থ ভৌমিক, স্নেহাশিস চক্রবর্তী, তাপস রায় এবং প্রদীপ মজুমদার পূর্ণ মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিতে পারেন। উদয়ন গুহ আলাদা বৈঠক করার পর তিনি তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হন। আগে তাঁর নাম ছিল না বলেই সূত্রের খবর। উদয়ন গুহকে মন্ত্রী করে উত্তরবঙ্গে প্রভাব বিস্তার করতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস। বছর ঘুরলেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। সেখানে বিজেপিকে হারিয়ে সাফল্য তুলে ধরতেই উদয়নই হবে তুরুপের তাস।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ জানা গিয়েছে, মন্ত্রিসভা থেকে সরানো হতে পারে সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে। তাঁকে ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক সাংগঠনিক জেলার সভাপতি করা হয়েছে। তাঁর জায়গায় পাঁশকুড়া পূর্বের বিধায়ক বিপ্লব রায়চৌধুরীকে মন্ত্রিসভায় আনা হতে পারে। আর স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী করা হতে পারে বিপ্লবকে। একইসঙ্গে ঝাড়গ্রামের বিধায়ক বীরাবাহা হাঁসদা এখন রাজ্যে বন প্রতিমন্ত্রী। তাঁর মর্যাদা বাড়িয়ে স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী করা হতে পারে। আবার প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রিসভায় নিয়ে আসা হতে পারে তাজমুল হোসেন এবং সত্যজিৎ বর্মণকে।

বন্ধ করুন