বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Nabanna Aviyan: পুলিশের গাড়িতে আগুন!‌ অভিযুক্তের সঙ্গে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর ছবি টুইট তৃণমূলের
বিজেপি নেতার সঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

Nabanna Aviyan: পুলিশের গাড়িতে আগুন!‌ অভিযুক্তের সঙ্গে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর ছবি টুইট তৃণমূলের

  • নবান্ন অভিযান করতে গিয়ে কলকাতায় অশান্তি তৈরির জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে দায়ী করে খোঁচা দেওয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। যদিও এই ছবি নিয়ে রাজ্য বিজেপির নেতারা প্রকাশ্যে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি। তবে এই ছবি প্রকাশ্যে আসায় ওই বিজেপি নেতা গ্রেফতার হতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার বিজেপির নবান্ন অভিযানে পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছিল। বিজেপি এই কাজ করে তৃণমূল কংগ্রেসের ঘাড়ে দোষ চাপিয়েছিল। বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, তাঁদের অভিযানে তৃণমূল কংগ্রেস লোক ঢুকিয়ে এই কাজ করেছে। এবার অভিযুক্তের ছবি টুইট করল তৃণমূল কংগ্রেস। আর তাঁর সঙ্গে ছবি রয়েছে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিকের। সুতরাং বিজেপির নেতাই এই কাজে যুক্ত বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এই ছবি বা ভিডিয়ো যাচাই করে দেখেনি হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা ডিজিটাল।

ঠিক কী প্রকাশ্যে এসেছে?‌ প্রকাশিত সেই ছবিতে অভিযুক্তকে নিশীথ প্রামাণিকের সঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। নবান্ন অভিযান করতে গিয়ে কলকাতায় অশান্তি তৈরির জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে দায়ী করে খোঁচা দেওয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। যদিও এই ছবি নিয়ে রাজ্য বিজেপির নেতারা প্রকাশ্যে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি। তবে এই ছবি প্রকাশ্যে আসায় ওই বিজেপি নেতা গ্রেফতার হতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের টুইটার থেকে কী পোস্ট করা হয়েছে?‌ তৃণমূল কংগ্রেসের টুইটার হ্যান্ডলে ওই বিজেপি নেতার সঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে ভিডিয়ো। আর সেখানে লেখা হয়েছে, ‘নিশীথ প্রামাণিক কি ব্যাখ্যা দেবেন? গতকাল পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির কলকাতায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিতে দেখা গিয়েছে এক বিজেপি কর্মীকে। একই ব্যক্তিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে ফটো তুলতেও দেখা গিয়েছে। অমিত শাহ এবার কাকে দোষ দেবেন?’‌

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ বিজেপির পক্ষ থেকে এই ছবির সত্যতা অস্বীকার করা হয়নি। বরং তাদের দলের কোচবিহার জেলা যুব মোর্চার সভাপতি কুমার চন্দন নারায়ণ জানান, দলের নেতার সঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকা ওই ব্যক্তি জেলা যুব মোর্চার সম্পাদক। নাম প্রীতিতোষ মণ্ডল ওরফে পুটু। এই বিষয়ে অভিযুক্ত নিজেই সংবাদমাধ্যমে দাবি করেন, তিনি ঘটনার সময় বড়বাজারের ওই জায়গায় উপস্থিত থাকলেও ভাঙচুর বা অগ্নিসংযোগে জড়িত নন। বিজেপির নবান্ন অভিযানে মহাত্মা গান্ধী রোডে পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটে।

বন্ধ করুন