প্রতিবাদে শশী পাঁজা ও মালা রায়।
প্রতিবাদে শশী পাঁজা ও মালা রায়।

কৈলাসের মন্তব্যের প্রতিবাদে ভর দুপুরে রাস্তায় বসে চিঁড়ে খেলেন তৃণমূল নেত্রীরা

বিক্ষোভে সামিল হন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, শশী পাঁজা। ছিলেন সাংসদ মালা রায় ও বিধায়ক স্মিতা বকসি।

কৈলাস বিজয়বর্গীয় ‘চিঁড়ে খায় বাংলাদেশি’ মন্তব্যের প্রতিবাদে পথে বসে চিঁড়ে খেলেন রাজ্যের মহিলা মন্ত্রী, সাংসদ ও বিধায়করা। শনিবার কলকাতায় গান্ধী মূর্তির পাদদেশে এই প্রতিবাদের আয়োজন করে তৃণমূল মহিলা কংগ্রেস।

এদিন চিঁড়ে নিয়ে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে পৌঁছন মহিলা তৃণমূল কর্মীরা। এরপর নিজেরাই চিঁড়ে ভাগ করে খেতে খেতে NO CAA, NO NRC স্লোগান তোলেন তাঁরা।

বিক্ষোভে সামিল হন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, শশী পাঁজা। ছিলেন সাংসদ মালা রায় ও বিধায়ক স্মিতা বকসি। চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, ‘কখনও খাবারের দোহাই দিয়ে কখনো ধর্মের দোহাই দিয়ে যে ভাবে মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরি করছে বিজেপি। কৈলাসবাবু কৈলাসে থাকেন বাংলা সম্পর্কে জানেন কী?’

বলে রাখি, গত বুধবার বিজেপি নেতা তথা এরাজ্যে বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় টুইট ঘিরে বিতর্ক বাঁধে। টুইটে তিনি লেখেন, ‘আমার বাড়িতে কয়েকজন বাঙালি শ্রমিক নির্মাণকাজ করছেন। তাদের অদ্ভূত খাদ্যাভ্যাস দেখে মনে হচ্ছে তারা বাংলাদেশি। তারা চিঁড়ে খাচ্ছে।’

কৈলাসবাবুর মন্তব্যে নিয়ে ইন্টারনেটে প্রতিবাদের ঝড় তোলেন নেটিজেনরা। ভারতের মতো বিশাল দেশের খাদ্য, পোশাক ও ভাষা সম্পর্কে বিজেপি নেতার জ্ঞানের পরিধি এই মন্তব্যে ধরা পড়ে গিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে।

বন্ধ করুন