বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দুর্যোগের জেরে সাত দিন পাহাড়ে পর্যটন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ট্যুর অপারেটরদের
বৃষ্টিতে পাহাড়ের রাস্তায় নেমেছে ধস।  (ILS)
বৃষ্টিতে পাহাড়ের রাস্তায় নেমেছে ধস।  (ILS)

দুর্যোগের জেরে সাত দিন পাহাড়ে পর্যটন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ট্যুর অপারেটরদের

  • এই পরিস্থিতিতে আপাতত পাহাড়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে পর্যটন সংস্থাগুলি। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে তারা জানাচ্ছে, পাহাড়ের বহু নদী এখনো বিপদসীমার ওপরে বইছে। ঝরনাগুলি ফুলে ফেঁপে উঠেছে।

প্রবল বর্ষণে বিপর্যস্ত দার্জিলিং ও সিকিম পাহাড়। বিভিন্ন জায়গায় ধসে অবরুদ্ধ একাধিক রাস্তা। এই পরিস্থিতিতে আগামী ৭ দিন দার্জিলিং, ডুয়ার্স ও সিকিমের সমস্ত ট্যুর বাতিল করল কলকাতার নামি পর্যটন সংস্থাগুলি। তাদের তরফে জানানো হয়েছে, পাহাড়ের পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পর্যটকদের নিয়ে সেখানে যাবেন না তারা।

নিম্নচাপের জেরে সোমবার রাত থেকে পাহাড়ে শুরু হয় ব্যাপক বৃষ্টি। গোটা মঙ্গলবার অবিশ্রান্ত বৃষ্টি হয় সেখানে। বুধবার বেলা বাড়লে বৃষ্টির দাপট কমে। ততক্ষণে ধস নেমেছে পাহাড়ের ছোট বড় প্রায় সব রাস্তায়। অবরুদ্ধ হয়ে হয়ে শিলিগুড়ি থেকে কালিম্পং হয়ে সিকিম যাওয়ার পথ। দার্জিলিং ও সিকিমে হোটেলবন্দি হয়ে পড়েন বহু পর্যটক। ট্রেন ও বিমানের টিকিট কাটা থাকায় ঝুঁকি নিয়ে নামতে বাধ্য হন অনেকে।

এই পরিস্থিতিতে আপাতত পাহাড়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে পর্যটন সংস্থাগুলি। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে তারা জানাচ্ছে, পাহাড়ের বহু নদী এখনো বিপদসীমার ওপরে বইছে। ঝরনাগুলি ফুলে ফেঁপে উঠেছে। তার ফলে যে কোনও সময় নতুন করে ধস নামতে পারে। যার জেরে আটকে পড়তে পারেন পর্যটকরা। তাছাড়া ধস কবলিত এলাকা দিয়ে যানবাহন চালিয়ে যাওয়াও ঝুঁকিপূর্ণ।

কলকাতার নামি পর্যটন সংস্থা কুন্ডু ট্রাভেলসের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী সাত দিন আমাদের দার্জিলিং, সিকিও ও ডুয়ার্সের সমস্ত ট্যুর বাতিল করা হচ্ছে। পরে এই ট্যুরগুলির পরিকল্পনা করা হবে। ওদিকে পুজোর ছুটিতে বেড়ানো মাটি হওয়ায় মুখভার পর্যটকদের।

 

বন্ধ করুন