বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > তোয়ালেটাই ‘তো বিরোধী নেতার’, শুভেন্দুকে ধরে হাসিমুখে বললেন দিলীপ!

ভোটের আগে মুখে নিজেদের মেদিনীপুরের দুই ছেলে বলতেন। কিন্তু আদতে দিলীপ ঘোষ এবং শুভেন্দু অধিকারীর মধ্যে নাকি ‘রেষারেষি’ আছে। দু'জনের একাধিক মন্তব্য বা কাজে সেই জল্পনা ক্রমশ বেড়েছে। তারইমধ্যে বুধবার বিধানসভায় নজর কাড়ল দিলীপ এবং শুভেন্দুর 'তোয়ালে' সৌজন্য।

ঠিক কী হয়েছিল ঘটনাটা? বুধবার বিধানসভায় আসেন দিলীপ। আসেন বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কক্ষেও। দিলীপ আসতেই তাঁর জন্য একটি কালো চেয়ার এনে দেন এক ব্যক্তি। তখন শুভেন্দু নিজের চেয়ারের সাদা তোয়ালে তুলে দিলীপের চেয়ারে দিতে যান। তা দেখে আটকান মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ। শুভেন্দুর হাত ধরে হাসিমুখে বলেন, ‘ওটাই তো বিরোধী নেতার।’ তা শুনে শুভেন্দুও হেসে ওঠেন। শুভেন্দুর পিঠে হাত দিয়ে হাসিমুখে কথা বলেন দিলীপ। হেসে বলে ওঠেন, ‘কাপড়টা সরিয়ে দিলে কী থাকল চেয়ারের!’ তারপর দু'জনেই বসে পড়েন। সেইসময় পাশে ছিলেন বালুরঘাটের বিজেপি বিধায়ক অশোক লাহিড়ি। তাঁকেও দিলীপ এবং শুভেন্দুর ‘রসায়ন’ উপভোগ করতে দেখা যায়।

এমনিতে বিধানসভা ভোটের আগে দিলীপ এবং শুভেন্দু নিজেদের মেদিনীপুরের দুই ছেলে হিসেবে তুলে ধরতেন। কিন্তু ভোটের পর একটি মহলের তরফে দাবি করা হয়, বিজেপির অন্দরে নিজের ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য দিল্লিতে দরবার করছিলেন শুভেন্দু। ভোটের ফল প্রকাশের পর একাধিকবার দিল্লিতে গিয়েছিলেন। সেই বিষয়ে দিলীপকে সাংবাদিক বৈঠকে প্রশ্ন করা হলে দিলীপ জানিয়েছিলেন, শুভেন্দু কেন দিল্লিতে গিয়েছেন, তা দিল্লির নেতারাই বলতে পারবেন। তারপর থেকে দিলীপ এবং শুভেন্দুর ‘শীতল’ সম্পর্ক নিয়ে জল্পনা আরও বৃদ্ধি পায়। একটি মহলে জল্পনা ছড়ায়, তাহলে কি বিজেপির অন্দরে দিলীপ এবং শুভেন্দু শিবির তৈরি হয়েছে? সেইসব জল্পনার মধ্যেই দিলীপ এবং শুভেন্দুর 'তোয়ালে' সৌজন্যে গেরুয়া শিবিরের বক্তব্য, দু'জনের ‘রেষারেষির’ যে তত্ত্ব আছে, তা আকাশকুসুম। নেহাত মন্দ নয় দিলীপ-শুভেন্দুর সম্পর্ক।

বন্ধ করুন