বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বেহালা খুন: ‌দিদির গয়না, টাকা পয়সার উপর লোভ ছিল ২ মাসতুতো ভাইয়ের
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

বেহালা খুন: ‌দিদির গয়না, টাকা পয়সার উপর লোভ ছিল ২ মাসতুতো ভাইয়ের

তাঁরা জানিয়েছে, বাইরে তাঁদের খুব ধার হয়ে গিয়েছিল। সেই দেনা মেটাতেই টাকা পয়সা ও গয়না হাতিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন তাঁরা।

বেহালার পর্ণশ্রীতে মা এবং ছেলেকে খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্তদের পাকড়াও করেছে পুলিশ। ধৃতরা দু'জনেই মহিলার মাসতুতো ভাই। মৃতের পরিবারের অনেক টাকা পয়সা, গয়না আছে, এই ধারণা থেকেই তাঁদের খুন করে সবকিছু হাতিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল অভিযুক্তরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, যে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তাঁদের দুজনেরই বাড়ি মহেশতলায়। জেরায় ওই দু'জনই তাঁদের অপরাধ পুলিশের কাছে কবুল করেছে। পুলিশকে তাঁরা জানিয়েছে, বাইরে তাঁদের খুব ধার হয়ে গিয়েছিল। সেই দেনা মেটাতেই টাকাপয়সা ও গয়না হাতিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন তাঁরা। সেইমতো খুনের সময় হিসেবে দুপুরবেলাকেই বেছে নেওয়া হয়। যেহেতু দুপুরের সময়ে অনলাইন ক্লাসে ব্যস্ত খাকে ভাগ্নে, তাই সেই সময়কেই খুনের আদর্শ সময় হিসাবে বেছে নেওয়া হয়। পুলিশ জানতে পেরেছে, ধর্মতলার একটি শপিং মলে সিসিটিভি নজরদারির একটি কাজ করে সঞ্জয়। গত সোমবার যখন পর্ণশ্রীর আবাসনে সঞ্জয় যায়, তখনও সিসিটিভি ক্যামেরার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয় সঞ্জয়। ভাই সন্দীপকে সঙ্গে ঠান্ডা মাথায় দিদিকে খুন করে সঞ্জয়। দিদিকে খুন করার দৃশ্য ভাগ্নে দেখে ফেলেছিল। তাই তাঁকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করে দুজন।

যদি সঞ্জয়ের পরিবার অবশ্য বিষয়টি মানতে চাইছে না। তাঁদের মতে, পুলিশ আসলে সঞ্জয়কে ফাঁসিয়েছে। পুলিশের কথাতেই সঞ্জয়ের পরিবারের লোকেরা বেশ কিছু অসংগতি খুঁজে পেয়েছে। গত ৬ অগস্ট লালবাজারে ১০০ নম্বর ডায়ালে ফোন আসে। এরপরই বেহালার পণ্যশ্রী আবাসনে গেলে সেখান থেকে মা ও ছেলের গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়।

বন্ধ করুন