বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌দেরিতে হলেও সঠিক পদক্ষেপ’‌, দিলীপকে সেন্সরের পরই টুইট খোঁচা তথাগত রায়ের
তথাগত রায়।

‘‌দেরিতে হলেও সঠিক পদক্ষেপ’‌, দিলীপকে সেন্সরের পরই টুইট খোঁচা তথাগত রায়ের

  • বঙ্গ–বিজেপির নেতৃত্বের বিরুদ্ধে বরাবরই সোচ্চার ছিলেন প্রবীণ এই বিজেপি নেতা। একাধিকবার বিজেপির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যেই সোচ্চার হয়েছেন তথাগত রায়কে। কখনও প্রার্থী নির্বাচন বা অন্য কোনও বিষয়, বারবার দলের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন তথাগত রায়। দিলীপ ঘোষকে তিনি কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন।

দিলীপ ঘোষকে সেন্সর করেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বাংলা নিয়ে কোনও আলটপকা মন্তব্য করা যাবে না বলে চিঠি পাঠিয়ে বলা হয়েছে। যে রাজ্যগুলির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সেখানে মন দিতেও চিঠিতে উল্লেখ করেছেন অরুণ সিং। আর এই নির্দেশ তিনি দিয়েছেন জেপি নড্ডার অনুমতিতেই। আর এই সিদ্ধান্ত দেরিতে হলেও শেষমেশ সঠিক পথে হেঁটেছে দল বলে টুইট করলেন তথাগত রায়।

কেন এমন মন্তব্য তাঁর?‌ বঙ্গ–বিজেপির নেতৃত্বের বিরুদ্ধে বরাবরই সোচ্চার ছিলেন প্রবীণ এই বিজেপি নেতা। একাধিকবার বিজেপির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যেই সোচ্চার হয়েছেন তথাগত রায়কে। কখনও প্রার্থী নির্বাচন বা অন্য কোনও বিষয়, বারবার দলের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন তথাগত রায়। দিলীপ ঘোষকে তিনি কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন। একুশের নির্বাচনে ভরাডুবির জন্য রাজ্য নেতৃত্বকে দায়ী করে টুইট করেন তিনি। যার ফলে দলের সঙ্গে দূরত্বও বেড়েছিল।

ঠিক কী লিখেছেন তথাগত রায়?‌ দিলীপ ঘোষকে সেন্সর করার পরই দলের প্রশংসা করে টুইট করেন তথাগত রায়। আজ, শুক্রবার তিনি লেখেন, ‘‌কেন্দ্রীয় বিজেপির পক্ষ থেকে দেরিতে হলেও সঠিক পদক্ষেপ করা হয়েছে। ফলে আমি দলের বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করব না। নিজের ‘ঠোঁটকাটা’ ভূমিকা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি। স্বাভাবিকভাবেই টুইটারের বায়োও পরিবর্তন করছি। ভারত মাতা কী জয়!’‌

এই মন্তব্য বা টুইট দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বলেই মনে করা হচ্ছে। যদিও তিনি কারও নাম উল্লেখ করা হয়নি। সুকান্ত মজুমদারের সঙ্গেও এখন দিলীপ ঘোষের দ্বৈরথ রয়েছে। তাই একে অন্যকে সুযোগ পেলে খোঁচা দিতে ছাড়েন না। এই পরিস্থিতিতে প্রাক্তন মেঘালয়ের রাজ্যপালের টুইট বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ এবার তিনি বঙ্গ–বিজেপির ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন