বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > WB Cabinet Reshuffle: দুই দফতর থেকে সরানো হল ফিরহাদকে, তথ্যপ্রযুক্তিতে বাবুল, শিল্প পেলেন শশী,
ফিরহাদ হাকিমের স্কুটিতে সওয়ার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি)

WB Cabinet Reshuffle: দুই দফতর থেকে সরানো হল ফিরহাদকে, তথ্যপ্রযুক্তিতে বাবুল, শিল্প পেলেন শশী,

  • মন্ত্রিসভায় রদবদলে ‘ডিমোশন’ হল ফিরহাদ হাকিমের। তাঁর হাতে পরিবহণ এবং আবাসন ছিল। তা কেড়ে নেওয়া হল। চারজনের মন্ত্রিত্ব কেড়ে নেওয়া হল। গুরুত্ব বাড়ল শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, শশী পাঁজা, অরূপ বিশ্বাস, বীরবাহা হাঁসদা।

বড়সড় ‘ডিমোশন’ হল ফিরহাদ হাকিমের। রাজ্য মন্ত্রিসভার রদবদলে ফিরহাদের হাত থেকে দুটি দফতর কেড়ে নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারইমধ্যে গুরুত্ব বাড়ল শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, শশী পাঁজা, অরূপ বিশ্বাস, বীরবাহা হাঁসদার।

এতদিন ফিরহাদের হাতে পরিবহণ, আবাসন, পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর ছিল। তাঁর হাত থেকে পরিবহণ এবং আবাসন কেড়ে নেওয়া হয়েছে। অরূপ বিশ্বাসের হাতে আবাসন দফতর দিয়েছেন মমতা। অরূপের হাতে আগে থেকে বিদ্যুৎ দফতর এবং ক্রীড়া ও যুব দফতর ছিল। ফিরহাদের অপর দফতর পরিবহণ গেল স্নেহাশিস চক্রবর্তীর কাছে। যিনি বুধবার মন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন। 

আরও পড়ুন: WB Cabinet Reshuffle: মন্ত্রিসভায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠদের ছায়া!‌ নেপথ্যে কোন সমীকরণ আছে?

স্নেহাশিসের সঙ্গে শপথ নেওয়া বাবুলকে তথ্যপ্রযুক্তি ও পর্যটন মন্ত্রী করা হয়েছে।তথ্যপ্রযুক্তি ছিল পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে। পর্যটন দফতর সামলাতেন ইন্দ্রনীল সেন। প্রদীপ্ত মজুমদারের হাতে এসেছে পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতর। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণের পরে যে দফতরের দেখভাল করছিলেন পুলক রায়। তাঁর হাতে পূর্ত দফতর দেওয়া হয়েছে। পূর্ত দফতর ছিল মলয় ঘটকের হাতে। তাঁর হাতে আইন এবং শ্রম দফতর পড়ে থাকল।

তারইমধ্যে মমতার মন্ত্রিসভায় অত্যন্ত গুরুত্ব বেড়েছে শশীর। পার্থের শিল্প এবং বাণিজ্য দফতর সামলাবেন তিনি। সেইসঙ্গে নারী ও শিশুকল্যাণ দফতর থাকছে। পার্থের অপর দফতর পেয়েছেন বর্ষীয়ান শোভনদেব। তাঁর হাতে কৃষি দফতর আগে থেকেই ছিল। এবার পরিষদীয় মন্ত্রীও হলেন। 

আরও পড়ুন: WB New Ministers: রাজভবনে এলেন মুখ্যমন্ত্রী, নতুন মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন কারা?

অন্যদিকে, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী করা হল উদয়ন গুহকে। মুখ্যমন্ত্রী নিজের হাত থেকে সেই দফতর ছেড়ে দিলেন। উদয়নের উত্তরবঙ্গের সতীর্থ পরেশ অধিকারীর মন্ত্রিত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। পরিবর্তে শিক্ষা দফতরের প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন উত্তরবঙ্গেরই সত্যজিৎ বর্মণ। পরেশের পাশাপাশি মন্ত্রিত্ব হারালেন সৌমেন মহাপাত্র। তাঁর সেচ ও জলপথ দফতর পেলেন পার্থ ভৌমিক। এছাড়াও রত্না দে নাগ, হুমায়ুন কবীর বাদ পড়লেন।

কে কোন মন্ত্রিত্ব পেলেন?

  • তথ্যপ্রযুক্তি ও পর্যটন মন্ত্রী: বাবুল সুপ্রিয়। 
  • পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী: প্রদীপ্ত মজুমদার। 
  • পরিবহণ মন্ত্রী: স্নেহাশিস চক্রবর্তী। 
  • সেচ ও জলপথ মন্ত্রী: পার্থ ভৌমিক। 
  • পরিষদীয় মন্ত্রী এবং কৃষি মন্ত্রী: শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তাঁর হাতে আগে থেকেই কৃষি দফতর ছিল।
  • শিল্প এবং বাণিজ্য মন্ত্রী: শশী পাঁজা। তাঁর হাতে নারী ও শিশুকল্যাণ দফতর থাকছে।
  • জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি এবং পূর্ত দফতর: পুলক রায়।
  • স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত (মৎস্য) মন্ত্রী: বিপ্লব রায়চৌধুরী।
  • শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী: সত্যজিৎ বর্মণ।
  • ক্ষুদ্র, ছোটো, মাঝারি শিল্প এবং বস্ত্র দফতরের প্রতিমন্ত্রী: তাজমুল হোসেন।
  • স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত (স্বনির্ভর-স্বনিযুক্তি গোষ্ঠী) মন্ত্রী: বীরবাহা হাঁসদা। সেইসঙ্গে তাঁর হাতে 
  • উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী: উদয়ন গুহ।
  • আবাসন মন্ত্রী: অরূপ রায়। তাঁর হাতে আগে থেকেই বিদ্যুৎ দফতর এবং ক্রীড়া ও যুব দফতর ছিল।

বন্ধ করুন