দেড় ঘণ্টা তাঁকে ঘিরে চলল বিক্ষোভ। উঠল গো-ব্যাক স্লোগান। শেষে সমাবর্তনে অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়েই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিরে গেলেন রাজ্যপাল তথা আচার্য রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তাঁর অনুপস্থিতিতেই হয় সমাবর্তন অনুষ্ঠান।

গতকাল কোর্টরুম বৈঠকে যোগ দিতে গিয়ে অরবিন্দ ভবনের সামনে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েন রাজ্যপাল। তাঁর গাড়ি ঘেরাও করে কালো পতাকা দেখা হয়। রাজ্যপালকে গো ব্যাক স্লোগান দেওয়া হয়। পরে অরবিন্দ ভবনে ঢুকে পডু়য়াদের কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দেন। পরে প্রবল বিক্ষোভের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরিয়ে যান রাজ্যপাল। তিনি জানিয়েছিলেন, আজ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসবেন। যদিও রাজ্যপালের হাত থেকে ডিগ্রি না নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয় ছাত্র সংগঠনের তরফে।

সেই টানাপোড়েনের মধ্যেই সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আজ সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ যাদবপুরে আসেন রাজ্যপাল । পাঁচ নম্বর গেট দিয়ে ঢোকার সময় তাঁর গাড়ি আটকানো হয়। তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রভাবিত শিক্ষাবন্ধু সমিতি। গো-ব্যাক স্লোগান ওঠে। দেখানো হয় কালো পতাকা। গাড়িতে বসেই একের পর টুইট করেন ক্ষুব্ধ রাজ্যপাল।

ইতিমধ্যে যাদবপুরের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের সঙ্গে ফোনে মিনিটে দশেক কথা বলেন রাজ্যপাল। সুরঞ্জনবাবুকে তাঁর গাড়ির কাছে আসতে বলেন আচার্য। কিন্তু, উপাচার্য বলেন, পড়ুয়ারা শুয়ে আছে। ওদের মাড়িয়ে আমি যেতে পারব না। সরাসরি ফিরে যেতে না বললেও সুরঞ্জনবাবু ইঙ্গিতে জানান, আচার্যের অনুপস্থিতিতেই সমাবর্তন হতে পারে। সেক্ষেত্রে উপাচার্য সভাপতিত্ব করবেন।

এদিকে, কিছুক্ষণ গাড়ির মধ্যে বসে থাকলেও পরে গাড়ি থেকে বেড়িয়ে বিশ্বিবদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্যপাল।

বন্ধ করুন