বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > সরকার ফেলবও না, লিজও নেব না, মমতাকেই ৫ বছর চালাতে হবে: দিলীপ ঘোষ
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

সরকার ফেলবও না, লিজও নেব না, মমতাকেই ৫ বছর চালাতে হবে: দিলীপ ঘোষ

  • আজকে আপনি বিফল হয়েছেন, তাই সরকারটা অন্য কাউকে দিয়ে দেবেন?

আমরা সরকার ফেলবও না, লিজও নেব না। বৃহস্পতিবার এই ভাষায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে ব্যর্থ বলে দাবি করে বলেন। মানুষ ভোট দিয়ে যখন ক্ষমতায় এনেছে তখন ৫ বছর সরকার চালাতেই হবে আপনাকে।

বুধবার নবান্নে জেলাশাসকদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘অমিত শাহকে আমি বলেছিলাম। আপনার যদি মনে হয় আমি পারছি না তাহলে পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্ব নিন। জবাবে অমিত শাহ বলেছিলেন, সেটা কী করে হতে পারে। আমরা সরকার ফেলব না।’ 

এদিন মমতার এই মন্তব্যকে তীব্র আক্রমণ করেন দিলীপবাবু। তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সরকার সাহায্য করতে তৈরি। বারবার তা জানিয়েছে। যে দিন ঝড় এসেছে তার পর দিন মুখ্যমন্ত্রী কথার কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রীকে আসতে। প্রধানমন্ত্রী এসেছেন, সঙ্গে নিয়ে ঘুরেছেন, হাতে ১,০০০ কোটি টাকা দিয়ে গিয়েছেন। আন্তরিকতার কোনও প্রশ্ন নেই। রাজনীতিও নেই।‘ 

দিলীপ ঘোষের দাবি, ‘আজকে মমতা ব্যানার্জি একথা বলছেন কেন? কেন বলছেন, আমার মুন্ডু কেটে নিন? কেন অমিত শাহকে বলছেন, আমার সরকারটা নিয়ে নিন? আমরা লিজ নেব না কোনও সরকার। ওটা পিকেকে দিয়েছেন উনিই দেখুন।‘ 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে আক্রমণ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘মানুষ আপনাকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিয়েছে ৫ বছর সরকার চালানোর জন্য। আজকে আপনি বিফল হয়েছেন, তাই সরকারটা অন্য কাউকে দিয়ে দেবেন?‘ 

বিজেপি কোনও অবস্থাতেই তৃণমূল সরকার ফেলবে না একথা স্পষ্ট করে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলের, ‘এতদিন আপনি সরকারের মাধ্যমে জনগণকে শাসক করেননি, শোষণ করেছেন। রেশন লুঠ থেকে শুরু করে, জনধন থেকে শুরু করে গ্যাস... সব কিছু সরকারি খাজানার টাকা নিয়েছে আপনার ভাইরা। আজকে যখন বিপদে পড়ে গিয়েছেন তখন অন্য কেউ সহযোগিতা করবে? এটা হবে না। আপনাকেই ৫ বছর সামলাতে হবে। আমরা দেখতে চাই।‘ 

তবে বিজেপি সরকারের পাশে আছে বলেও স্পষ্ট করেন তিনি। বলেন, ‘আর বিজেপির কালচারে অন্য কারও সরকার ফেলে দেওয়া, রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা এসব নেই। আমরা একে নৈতিক ভাবে সমর্থন করি না, আর করবও না। আপনাকে লোক দায়িত্ব দিয়েছে, লোকের সুখে-দুখে আপনাকে তার সঙ্গে থাকতে হবে। আমরা সহযোগিতা করার জন্য ছিলাম, আছি, থাকব।‘ 

মমতাকে দিলীপের কটাক্ষ, ‘আপনি আমাকে বাড়ি থেকে বেরোতে দেবেন না। আমার নেতা-মন্ত্রীর বাড়ির সামনে পুলিশ পোস্টিং করে দেবেন। আমার এমপিকে কোয়ারেন্টাইনের নোটিশ ধরাবেন, তার পর আমরা কী করে আশা করব আপনি সহযোগিতা চান? আপনি সহযোগিতা চান না, করতেও পারবেন না। কেবল রাজনীতি করতে পারবেন।‘

বিজেপির একাংশের দাবি, বিধানসভা নির্বাচনের আগে জন সমর্থন তলানিতে বুঝে পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন লাগু করতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই। তাতে ভোট হলে আম জনতার সহানুভূতি পাবেন তিনি। 

 

বন্ধ করুন