বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ICMR-এর পাঠানো কিটে বাংলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তৃণমূলের
ICMR-এর পাঠানো নতুন কিট ব্যবহার করার পরে বাংলায় কোভিড পজিটিভ রোগীর সংখ্যা একলাখে কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ চিকিৎসকদের।
ICMR-এর পাঠানো নতুন কিট ব্যবহার করার পরে বাংলায় কোভিড পজিটিভ রোগীর সংখ্যা একলাখে কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ চিকিৎসকদের।

ICMR-এর পাঠানো কিটে বাংলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তৃণমূলের

  • রাজ্যে করোনা প্রকোপের মাত্রা বাড়ানোর উদ্দেশেই এই প্রচেষ্টা, অভিযোগ করেছেন এনআরএস রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান তথা তৃণমূল নেতা চিকিৎসক শান্তনু সেন।

ICMR-এর পাঠানো করোনা পরীক্ষার কিট নিয়ে সংশয় দেখা দিল পশ্চিমবঙ্গের একাধিক হাসপাতালে। তৃণমূলের দাবি, অন্তর্ঘাতের উদ্দেশেই এই ত্রুটিযুক্ত কিট বাংলায় পাঠানো হয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রথমে কল্যাণীর জওহরলাল নেহরু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং পরে কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে ওই কিট ব্যবহার করার পরে কোভিড পজিটিভ রোগীর সংখ্যা একলাখে কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই পরিস্থিতিতে নতুন ট্রুপিসিআর কিট নিয়ে চিকিৎসকদের সন্দেহের বিষয়টি রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণস্বরূপ নিগমকে জানানো হয়। তার জেরে কিটের মান পর্যালোচনার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন। 

এর জেরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সঙ্গে অনলাইন বৈঠকে আইসিএমআর-এর দেওয়া নতুন কোভিড কিট ফেরত নিয়ে পুণেতে তৈরি পুরনো কিট পাঠানোর অনুরোধ জানায় রাজ্য। কিন্তু দিল্লি জানায়, এই একই কিট অন্যান্য রাজ্যে ব্যবহার করে সুফল পাওয়া গিয়েছে। সেই সঙ্গে বলা হয়, এই কিট ব্যবহারের জন্য কর্মীদের প্রশিক্ষণের প্রয়োজন হয়। 

রাজ্যের চিকিৎসকদের একাংশ জানিয়েছেন, উন্নত মানের এই কিট করোনা সংক্রমণ পরীক্ষার জন্য খুবই উপকারি। তাঁদের মতে, তার সাহায্যে একই সঙ্গে আরএনএ পরীক্ষার জন্য ‘ই’ জিন এবং ‘আর’ জিনের অবস্থান স্পষ্ট হয়। অর্থাৎ কোভিড স্ক্রিনিং ও চিহ্নিতকরণ দুই কাজই করতে দক্ষ এই কিট।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের অভিযোগ, প্রশিক্ষণ ছাড়া কোভিড পরীক্ষার অত্যাধুনিক কিট পাঠিয়েছে আইসিএমআর। তাতেই ছড়াচ্ছে বিভ্রান্তি। আবার দফতরের কয়েক জন আধিকারিকের দাবি, কিটগুলি ত্রুটিপূর্ণ হওয়ার ফলেই করোনা সংক্রমণের হার বেড়েছে। 

আবার প্রশাসনের একাংশের দাবি, জেনেবুঝেই বাংলায় ত্রুটিপূর্ণ কিট পাঠানো হয়েছে। রাজ্যে করোনা প্রকোপের মাত্রা বাড়ানোর উদ্দেশেই এই প্রচেষ্টা, অভিযোগ করেছেন এনআরএস রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান তথা তৃণমূল নেতা চিকিৎসক শান্তনু সেন। 

এই বিতর্কের মাঝেই দেখা দিয়েছে অন্য সমস্যা। নতুন কিট ফেরত নিয়ে আইসিএমআর পুরনো কিট পাঠালে, এ পর্যন্ত পরীক্ষিত করোনা পজিটিভ রোগীদের ফের রপরীক্ষা করা হবে কি না, তাই নিয়ে ধন্দে রয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। 

বন্ধ করুন