বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিধানসভার অন্দরে আপাতত মুকুল–শুনানি নয়, আজ সাফ জানিয়ে দিলেন অধ্যক্ষ
বিধানসভা। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
বিধানসভা। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

বিধানসভার অন্দরে আপাতত মুকুল–শুনানি নয়, আজ সাফ জানিয়ে দিলেন অধ্যক্ষ

  • তিনি জানিয়েছেন, আর দলত্যাগ নিয়ে শুনানি বিধানসভায় হবে না। যতক্ষণ না সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিচ্ছে।

আর কয়েকদিন বাদেই রয়েছে বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির বৈঠক। সেখানে উপস্থিত থাকবেন এই কমিটির চেয়ারম্যান মুকুল রায়। বিজেপি এখনও চায় বিধানসভার অন্দরে তাঁর দলত্যাগ নিয়ে শুনানি হোক। কিন্তু সে গুড়ে বালি দিয়েছেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, আর দলত্যাগ নিয়ে শুনানি বিধানসভায় হবে না। যতক্ষণ না সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিচ্ছে। এখন এই বিষয়টি বিচারাধীন বলে শুক্রবার জানালেন তিনি।

কেন হঠাৎ এমন জানালেন অধ্যক্ষ?‌ বিধানসভা সূত্রে খবর, আজ, শুক্রবার বিজেপির বিধায়ক অম্বিকা রায় আইনজীবী নিয়ে অধ্যক্ষের দরবারে হাজির হন। সেখানে তিনি অধ্যক্ষকে মুকুল রায়ের দলত্যাগ নিয়ে শুনানির জন্য জানান। তখনই অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ না আসা পর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ করা সম্ভব নয়। তাই বিধানসভার অন্দরে এই দলত্যাগের অভিযোগের কোনও শুনানি হবে না।

এই দলত্যাগের বিষয়টি এখন সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন। তাই সেখান থেকে কোনও নির্দেশ না আসা পর্যন্ত আগামী ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিধানসভায় কোনও শুনানি হবে না। সুতরাং মুকুল রায় ইস্যু বিজেপি তুলতে চাইলেও আপাতত তা ঠাণ্ডা ঘরে চলে গেল বলে মনে করা হচ্ছে। বিজেপির অভিযোগ, প্রথা ভেঙেই মুকুল রায়কে এই পিএসি’‌র চেয়ারম্যান করা হয়েছে। তাই মামলা করা হয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টে। নালিশ ঠোকা হয়েছিল রাজ্যপালের কাছে। কিন্তু এখনও কোনও সুরাহা পায়নি বিজেপি।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়, বিধায়ক মুকুল রায়কে পিএসি চেয়ারম্যান রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর তা জানাতে হবে ৭ অক্টোবরের মধ্যে। এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের যান বিধানসভার অধ্যক্ষ। ফলে সেই মামলা এখনও বিচারাধীন। আর বিচারাধীন কোনও বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না। তাই বিধানসভায় শুনানিও হবে না।

বন্ধ করুন