বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > এবার শ্রমিকদের পাশেও দাঁড়ালেন মমতা, নতুন শ্রম বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ডাক
নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)

এবার শ্রমিকদের পাশেও দাঁড়ালেন মমতা, নতুন শ্রম বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ডাক

  • এই বিলে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রক সুপারিশ করেছে, অন্তত ৩০০ কর্মী রয়েছে এমন সংস্থা সরকারি ছাড়পত্র ছাড়াই নিয়োগ বা ছাঁটাই করতে পারবে।

কৃষি বিলের পাশাপাশি এবার শ্রম বিল অর্থাৎ ইন্ট্রাস্ট্রিয়াল রিলেশন কোড বিল ২০২০–র বিরুদ্ধে সরব হলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার লোকসভায় পেশ করা এই বিলে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রক সুপারিশ করেছে, অন্তত ৩০০ কর্মী রয়েছে এমন সংস্থা সরকারি ছাড়পত্র ছাড়াই নিয়োগ বা ছাঁটাই করতে পারবে। এর আগে ১০০ জন বা তার কম সংখ্যক কর্মী রয়েছেন এমন সংস্থাই সরকারি অনুমতি ছাড়া নিয়োগ বা ছাঁটাই করতে পারত। সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে ‘‌শ্রমিকদের ওপর বড় বজ্রাঘাত’‌ বলে নিন্দা জানালেন মমতা।

এদিন তিনি প্রশ্ন করেন, ‘‌৩০০ জনের মতো লোক থাকলে যখন ইচ্ছে তখন ছাঁটাই করতে পারার এই আইন কেন আনছে কেন্দ্র?‌’‌ তাঁর কথায়, ‘‌বেশিরভাগ শিল্পই ছোট বা মাঝারি আকারের। তাতে এমনিতেই কম শ্রমিক প্রয়োজন। তার ওপর বড় শিল্পে উন্নতমানের যন্ত্রপাতি চলে আসায় বেশি লোকবল লাগে না। তা ছাড়া করোনা মহামারির জেরে ইতিমধ্যে অনেকে কাজ হারিয়ে বাড়িতে বসে।’‌ এই সময়ে কেন্দ্রের এমন সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

মমতা এদিন জানান, ‘‌এখন বলা হচ্ছে ৩০০ জনের মতো যেখানে আছে সেখানে সরকার ইচ্ছেমতো ছাঁটাই করে দিতে পারবে। কোন আইনকানুন কাজ করবে না। এর আগে এই সংখ্যা পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে ছিল ৫০, দেশের ক্ষেত্রে ছিল ১০০। পাপমোচন করার ক্ষমতা নেই, শাপমোচন করতে বলা হয়েছে। চুনোপুটি উৎপাদনের ক্ষমতা নেই, রাঘববোয়াল হবে। এই হচ্ছে দেশের অবস্থা। সুতরাং আমরা সর্বস্তরের মানুষকে এর প্রতিবাদে সামিল হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’‌ মুখ্যমন্ত্রী আশবাদী, আগামীদিন এই শ্রমিক ইস্যুতেও সব রাজনৈতিক দল এক হবে।

বন্ধ করুন