বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > শনিবার নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদের বৈঠকে অংশ নিতে নারাজ মমতা
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

শনিবার নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদের বৈঠকে অংশ নিতে নারাজ মমতা

মমতার অভিযোগ, এর পরিচালনা পরিষদের কোনও আর্থিক ক্ষমতা নেই এবং তারা রাজ্যের পরিকল্পনাগুলিকে কোনওদিক থেকেই সমর্থন করতে পারে না।

নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদের বৈঠকে অংশ নাও নিতে পারেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্র মারফত এমনই সম্ভাবনা সামনে এল বৈঠকের ঠিক আগের দিন। ২০ ফেব্রুয়ারি, শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভাপতিত্বে হতে চলেছে নীতি অায়োগের এই বৈঠক। তৃণমূল সূত্রে খবর, বৈঠকটি এড়িয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা।

প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির লেফটেন্যান্ট গভর্নর, একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও সরকারি আধিকারিকদের নিয়ে গঠিত হয় নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদ। এর প্রতিটি বৈঠকের ন্যায় শনিবারের বৈঠকটিরও সভাপতিত্ব করবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। সরকারি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, এই বৈঠকে কৃষি, সামগ্রিক পরিকাঠামো, উৎপাদন ও মানবসম্পদ উন্নয়নের বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করা হবে।

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নীতি আয়োগের ২০ ফেব্রুয়ারির বৈঠকে অংশ নাও নিতে পারেন— নিজের পরিচয় গোপন রেখে এমনই জানিয়েছেন তৃণমূলের এক নেতা। এর আগেও নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদের বৈঠক এড়িয়ে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে, নীতি আয়োগের এই বৈঠক করে কোনও লাভ নেই। মমতার অভিযোগ, এর পরিচালনা পরিষদের কোনও আর্থিক ক্ষমতা নেই এবং তারা রাজ্যের পরিকল্পনাগুলিকে কোনওদিক থেকেই সমর্থন করতে পারে না।

ওই সরকারি বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, নীতি আয়োগের এই ষষ্ঠতম বৈঠকে এবার কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে প্রথমবারের জন্য অংশ নিতে চলেছে লাদাখ। একইসঙ্গে আগামীকালের বৈঠকে এই প্রথম কোনও রাজ্য হিসেবে নয়, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে অংশ নেবে জম্মু–কাশ্মীরও। উল্লেখ্য, ২০১৫–র ৮ ফেব্রয়ারি প্রথম বৈঠকের পর থেকে প্রতি বছরই বৈঠকে অংশ নয় নীতি আয়োগের পরিচালনা পরিষদ। তবে গত বছর করোনা পরিস্থিতির জেরে এই বৈঠক বাতিল করা হয়।

বন্ধ করুন