১ মার্চ কলকাতায় পা রাখছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।
১ মার্চ কলকাতায় পা রাখছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

দোরগোড়ায় পুরভোট, ঘুঁটি সাজাতে ১ মার্চ শহরে অমিত শাহ

  • রাজ্য বিজেপির তরফে ১ মার্চ তাঁর একটি জনসভা আয়োজনের চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রতিটি নির্বাচনী বুথের জন্য ২০ সদস্যের কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য বিজেপি।

আসন্ন পুর নির্বাচনে বিজেপির প্রচার-নীতি নির্ধারণ করার উদ্দেশে ১ মার্চ কলকাতায় আসছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

শুক্রবার দিল্লিতে অমিত শাহ জানিয়েছিলেন, শাহিন বাগ বিক্ষোভ সম্পর্কে দলের কিছু নেতার মন্তব্য দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে প্রভাব বিস্তার করেছে। এই কারণে রাজ্য পুরভোটে দলীয় প্রচারের নীতি নির্দিষ্ট করতে পারেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, এমনই মনে করছেন বাংলার বিজেপি নেতৃত্ব।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজ্য সফরের খুঁটিনাটি সম্পর্কে এখনও কিছু জানা না গেলেও রাজ্য বিজেপির তরফে ১ মার্চ তাঁর একটি জনসভা আয়োজনের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে শনিবার সন্ধ্যায় জানিয়েছেন দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু।

পুর নির্বাচনে দলগত কৌশল নির্ধারণের উদ্দেশে শনিবার রুদ্ধ দুয়ার বৈঠকে বসেন রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতারা। প্রতিটি নির্বাচনী বুথের জন্য কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ওই বৈঠকে।



আরও পড়ুন: 'ভোটের জন্য গুন্ডা আনতে গিয়েছেন', হেমন্তের শপথে মমতার উপস্থিতিতে কটাক্ষ বিজেপির


বৈঠকে উপস্থিত এক শীর্ষস্থানীয় বিজেপি নেতা জানিয়েছেন, ‘কমিটির সদস্য সংখ্যা নির্ভর করবে সংশ্লিষ্ট এলাকায় আমাদের শক্তির উপরে। নির্বাচনী প্রচারনীতি পরে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতারা স্থির করবেন। আপাতত আমরা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে আমাদের প্রচার চালিয়ে যাব।’

রাজ্যের মোট ১০৮টি পুরসভা এবং ৭টি পুর নিগমে নির্বাচন হতে চলেছে। প্রতিটি বুথ কমিটিতে ২০ জন সদস্য রাখার পরিকল্পনা করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। মাধ্যমিক পরীক্ষার কারণে এক মাস প্রচারে মাইক্রোফোন ব্যবহারের উপরে নিষেধাজ্ঞা থাকায় ঘরে ঘরে প্রচারের পরিকল্পনা করেছে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল।

অন্য দিকে তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে, পুর নির্বাচন ঘোষণা করার জন্য আগামী ১০ মার্চের পরে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন জানাবে প্রশাসন। পুরভোট তত্ত্বাবধানের জন্য দলের ৬ শীর্ষ নেতাকে দায়িত্ব অর্পণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।



বন্ধ করুন