বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > আনন্দপুর কাণ্ডে নীলাঞ্জনাকে সাবাসি মুখ্যমন্ত্রীর, চিকিৎসার ভার বইবে রাজ্য সরকার
বাঁ দিলে নীলাঞ্জনা। ডান দিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
বাঁ দিলে নীলাঞ্জনা। ডান দিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

আনন্দপুর কাণ্ডে নীলাঞ্জনাকে সাবাসি মুখ্যমন্ত্রীর, চিকিৎসার ভার বইবে রাজ্য সরকার

  • তদন্তে পুলিশকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ উঠেছে তরুণীর বিরুদ্ধে। পুলিশকে অভিযুক্তের ভুল নাম জানানোর অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে।

আনন্দপুরে তরুণীর শ্লীলতাহানি ও নিগ্রহকাণ্ডে প্রতিবাদী নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়কে সাহসিকতার জন্য উষ্ণ অভিনন্দন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নীলাঞ্জনার সাহসিকতার প্রশংসা করেছেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। এদিন হাসপাতালে নীলাঞ্জনাকে ফোন করেন পুলিশ কমিশনার। তিনি জানিয়েছেন, রাজ্য সরকার নীলাঞ্জনার চিকিৎসার সমস্ত খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার। পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে কথা হয়েছে নীলাঞ্জনার স্বামীরও।  

শনিবার রাত ৮টা নাগাদ আনন্দপুর এলাকায় একটি গাড়িতে এক তরুণীকে নিগ্রহের শিকার হতে দেখেন নীলাঞ্জনা। স্বামীর সঙ্গে অপর একটি গাড়িতে যাচ্ছিলেন তিনি। তরুণীকে বাঁচাতে গাড়ি থেকে নেমে এগিয়ে যান তিনি। এরই মধ্যে তরুণীকে গাড়ি থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে গাড়ি ঘুরিয়ে নীলাঞ্জনাকে ধাক্কা মারে গাড়িটি। নীলাঞ্জনা রাস্তায় পড়ে গেলে তাঁর বাঁ পায়ের ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে দেন অভিযুক্ত। নীলাঞ্জনার বাঁ পায়ের ২টি হাড়ই ভেঙে গিয়েছে। 

তদন্তে পুলিশকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ উঠেছে তরুণীর বিরুদ্ধে। পুলিশকে অভিযুক্তের ভুল নাম জানানোর অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে। গত প্রায় ৫ বছর ধরে অভিযুক্তের সঙ্গে পরিচয় ছিল তরুণীর। 

সোমবার নীলাঞ্জনার পায়ে অস্ত্রোপচার হয়। অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে অন্তত ৪ মাস হাঁটতে পারবেন না তিনি।

 

বন্ধ করুন