বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাজনীতিকে ধর্মের সঙ্গে মিশিয়ে ভোট পাওয়ার চেষ্টা অনুচিত: পুজো মামলায় বললেন দিলীপ
বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)

রাজনীতিকে ধর্মের সঙ্গে মিশিয়ে ভোট পাওয়ার চেষ্টা অনুচিত: পুজো মামলায় বললেন দিলীপ

  • দিলীপ ঘোষের দাবি পুজো অনুদানেও একই চালাকি করছে রাজ্য। তিনি বলেন, ‘এখানেও দানছত্র খুলে একই রকম কুযুক্তি দিচ্ছে সরকার। ৫০,০০০ টাকার মাস্ক বা স্যানিটাইজার লাগবে না।

পুজো অনুদান মামলায় হাইকোর্টের নির্দেশিকা নিয়ে সাবধানী প্রতিক্রিয়া দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর দাবি, টাকা কেউ চায়নি। রাজনৈতিক স্বার্থে টাকা দিয়েছে রাজ্য সরকার। সঙ্গে তাঁর পরামর্শ, রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে মিশিয়ে ভোটপাওয়ার পরিকল্পনা থেকে যেন আগামীতে বিরত থাকে সরকার। 

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘কেউ টাকা চায়নি। রাজনৈতিক স্বার্থে টাকা দিয়েছে রাজ্য সরকার। তার বিরোধিতা করে আদালতে মামলা হয়েছে’। 

ইমামভাতার কথা মনে করিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘তখন আদালতে রাজ্য সরকার দাবি করেছিল তোষণের উদ্দেশে নয়, টাকা দেওয়া হবে ইমামদের কল্যাণে। আর টাকা সরকার দেবে না। টাকা দেবে ওয়াকফ বোর্ড। কিন্তু পরে দেখা যায় ওয়াকফ বোর্ডকে টাকা দিচ্ছে রাজ্য সরকার’।

দিলীপ ঘোষের দাবি পুজো অনুদানেও একই চালাকি করছে রাজ্য। তিনি বলেন, ‘এখানেও দানছত্র খুলে একই রকম কুযুক্তি দিচ্ছে সরকার। ৫০,০০০ টাকার মাস্ক বা স্যানিটাইজার লাগবে না। কোর্টের কথা মাথায় রেখে রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে মিশিয়ে যে ভাবে ভোট পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে সেটা যেন আগামীতে চলা উচিত’।

বলে রাখি, দুর্গাপুজোয় সরকারি অনুদান দেওয়ার সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের মামলায় শুক্রবার গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, ওই টাকা পুজো বা অন্য কোনও বিনোদনে খরচ করা যাবে না। খরচ করা যাবে না পুজো উদ্যোক্তাদের বিনোদনে। টাকার ৭৫ শতাংশ মাস্ক – স্যানিটাইজার কিনতে ব্যবহার করতে হবে। বাকি টাকা খরচ করতে হবে পুলিশের সঙ্গে সচেতনতা প্রচারে। সমস্ত খরচের হিসাব প্রশাসনিক আধিকারিকদের কাছে নথি সহ জমা দিতে হবে। সেই খরচের অডিট হবে। 

 

বন্ধ করুন