বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা চিকিৎসায় পশ্চিমবঙ্গে বাড়ছে সেফ হোমের গুরুত্ব, ২৪ ঘণ্টা থাকবেন চিকিৎসক
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

করোনা চিকিৎসায় পশ্চিমবঙ্গে বাড়ছে সেফ হোমের গুরুত্ব, ২৪ ঘণ্টা থাকবেন চিকিৎসক

  • করোনা পরিস্থিতি স্থিতিশীল হলেও হাসপাতালের ওপর চাপ কমাতে সেফ হোমের পরিকাঠামো আরও শক্তপোক্ত করার সিদ্ধান্ত নিল স্বাস্থ্য দফতর।

গত প্রায় ১ সপ্তাহ ধরে পশ্চিমবঙ্গে করোনা অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা নিম্নমুখি। তা সত্বেও প্রস্তুতিতে খামতি রাখতে নারাজ পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রোগীদের ভোগান্তি কমাতে সব সময় তৎপর স্বাস্থ্য দফতর। এবার করোনা রোগীদের চিকিৎসায় নতুন প্রোটোকল জারি করল তারা। তাতে করোনা হাসপাতালগুলিকে জানানো হয়েছে, করোন রোগীর উপসর্গ কমে গেলেই তাকে পাঠিয়ে দিতে হবে সেফ হোমে। এতে দ্রুত খালি হবে শয্যা। ভোগান্তি কমবে সাধারণ মানুষের। 

করোনা পরিস্থিতি স্থিতিশীল হলেও হাসপাতালের ওপর চাপ কমাতে সেফ হোমের পরিকাঠামো আরও শক্তপোক্ত করার সিদ্ধান্ত নিল স্বাস্থ্য দফতর। সিদ্ধান্ত হয়েছে, এবার থেকে সেফ হোমগুলিতে ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসক ও নার্স থাকবেন। নিয়মিত রোগীদের পর্যবেক্ষণে রাখবেন তাঁরা। এছাড়া থাকবে অক্সিজেন সিলিন্ডার ও পালস অক্সিমিটার। কোনও রোগীর দেহে অক্সিজেনের মাত্রা কমতে শুরু করলেই দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন নার্সরা।

হাসপাতালে শয্যাসংকট কাটাতে আগেই করোনা রোগীদের জন্য সেফ হোম তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উপসর্গহীন করোনা রোগীদের সেখানে রাখার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু সেফ হোম এখনো সেভাবে জনপ্রিয় হয়নি রাজ্যে। তাছাড়া বিভিন্ন জায়গায় সেফ হোমের পরিকাঠামো নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন।

 

বন্ধ করুন