বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > কাল রাস্তায় বেসরকারি বাস না নামলে হুকুম দখলের পথে হাঁটবে সরকার, হুঁশিয়ারি মমতার
নবান্নে মমতা।  (PTI)
নবান্নে মমতা।  (PTI)

কাল রাস্তায় বেসরকারি বাস না নামলে হুকুম দখলের পথে হাঁটবে সরকার, হুঁশিয়ারি মমতার

  • মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সরকারের প্রস্তাব মেনে বুধবার রাস্তায় ৬,০০০ বেসরকারি বাস না নামলে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে বাস হুকুম দখল করবে প্রশাসন।

বেসরকারি বাস রাস্তায় নামাতে কড়া পদক্ষেপ করতে চলেছে রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার নবান্নে বসে বাসমালিকদের উদ্দেশে স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, বুধবার রাস্তায় বাস না নামলে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে বাস হুকুম দখল করবে সরকার। তার পর চালক ও কনডাক্টর নিয়োগ করে বাস চালাবে সরকারই। 

এদিন মমতা এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগেই হাত জোড় করে ক্ষমা চান। তার পর বলেন, ‘বাসমালিকদের সঙ্গে যে আলোচনা হয়েছিল তা তাঁরা মানছেন না। আমি নিজে তাঁদের সঙ্গে কথা বলেছি। সরকারের সমস্ত স্তরের আধিকারিকরা তাঁদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তখন তাঁরা ভর্তুকির প্রস্তাবে রাজি ছিলেন। কিন্তু এখন অন্য কথা বলছেন।’

মুখ্যমন্ত্রী জানান, জনতার ভার লাঘব করতে বাসপিছু ১৫,০০০ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে সরকার। এতে সরকারের মোট ২৭ কোটি টাকা খরচ হচ্ছে কিন্তু তাতেও বাস মালিকরা বাস চালাতে রাজি নন। চালকরা রাজি, কনডাক্টররা রাজি কিন্তু বাস মালিকদের রাজি করানো যাচ্ছে না। 

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সরকারের প্রস্তাব মেনে বুধবার রাস্তায় ৬,০০০ বেসরকারি বাস না নামলে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে বাস হুকুম দখল করবে প্রশাসন। তার পর চালক ও কনডাক্টর নিয়োগ করে সেই বাস চালাবে সরকার। পুরো খরচটাই দেবে সরকার। তার পর ভাড়া থেকে যতটা টাকা ওঠার উঠবে। 

মুখ্যমন্ত্রী জানান, যে বাসে বর্তমানে যে চালক ও কনডাক্টর রয়েছেন তাঁরা কাজ করতে রাজি থাকলে তাঁদেরই নিয়োগ করবে সরকার। সেজন্য সরকার তাঁদের বেতন দেবে। আর তাঁরা রাজি না হলে নিজের মতো করে চালক ও কনডাক্টর খুঁজে নেবে প্রশাসন।

বলে রাখি, গত সপ্তাহে নবান্ন থেকে বাসমালিকদের জন্য বাসপিছু ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। জানান তিন মাস প্রতিটি বাসকে ১৫,০০০ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার। তবে এই ক্ষতিপূরণে বাসমালিকরা রাস্তায় গাড়ি নামাতে নারাজ। তাঁদের দাবি, তেলের দাম যা বেড়েছে আর তার ওপরে পুলিশ ফাইন মিলিয়েই ভর্তুকির টাকা খরচ হয়ে যাবে। প্রতিটি বাস চালাতে দিনে ২,০০০- ২,৫০০ টাকা লোকসান হচ্ছে। সেই ক্ষতির মুখে ভর্তুকির পরিমাণ অপ্রতুল।  

 

বন্ধ করুন