বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘স্বচ্ছতা’-র প্রমাণ হিসাবে বাণিজ্য সম্মেলনে বিনিয়োগের খতিয়ান চাইলেন রাজ্যপাল
Kolkata:West Bengal Governor Jagdeep Dhankhar during interaction with media personnel, at Governor house in Kolkata, Thursday, July 16, 2020. (PTI Photo/Swapan Mahapatra)(PTI16-07-2020_000037B) (PTI)
Kolkata:West Bengal Governor Jagdeep Dhankhar during interaction with media personnel, at Governor house in Kolkata, Thursday, July 16, 2020. (PTI Photo/Swapan Mahapatra)(PTI16-07-2020_000037B) (PTI)

‘স্বচ্ছতা’-র প্রমাণ হিসাবে বাণিজ্য সম্মেলনে বিনিয়োগের খতিয়ান চাইলেন রাজ্যপাল

  • বলে রাখি, মোদীর গুজরাতের ধাঁচে ২০১৬ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গে বাণিজ্য সম্মেলন বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটের আয়োজন করছে রাজ্য সরকার। এর মধ্যে একটি সম্মেলন হয়েছে মুম্বইয়ে।

পশ্চিমবঙ্গে ‘প্রশাসনিক কাজকর্ম যথেষ্ঠ স্বচ্ছতার সঙ্গে হচ্ছে’ বলে সোমবারই দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার পর ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই এবার সেই ‘স্বচ্ছতা’-র প্রমাণ চেয়ে বসলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত বাণিজ্য সম্মেলনের থেকে রাজ্যে কত টাকার বিনিয়োগ এসেছে ও কতজনের কর্মসংস্থান হয়েছে তার খতিয়ান চাইলেন তিনি। 

মঙ্গলবার নবান্নের উদ্দেশে এক চিঠিতে রাজ্য সরকারের কাছে মোট 6টি প্রশ্নের জবাব চেয়েছেন রাজ্যপাল। রাজ্যপালের প্রশ্ন, ২০১৬ সাল থেকে বাণিজ্য সম্মেলনের আয়োজন করতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার মোট কত টাকা খরচ করেছে? যে সংস্থাগুলিকে বাণিজ্য সম্মেলন আয়োজনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তারা কারা? যে সংস্থাগুলির মাধ্যে বাণিজ্য সম্মলেনের মঞ্চ ও অন্যান্য আপ্যায়নের ব্যবস্থা হয়েছিল তাদের নাম কী? ২০১৬ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বাণিজ্য সম্মেলনে কতগুলি মউ সাক্ষরিত হয়েছে? তাতে মোট কত জনের কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে? বাস্তবে তার মধ্যে কত টাকা বিনিয়োগ হয়েছে ও কতজনের কর্মসংস্থান হয়েছে?

বলে রাখি, মোদীর গুজরাতের ধাঁচে ২০১৬ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গে বাণিজ্য সম্মেলন বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটের আয়োজন করছে রাজ্য সরকার। এর মধ্যে একটি সম্মেলন হয়েছে মুম্বইয়ে। রাজ্য সরকারের দাবি, প্রতিবারই ২ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে বাণিজ্য সম্মেলন থেকে। তবে কত টাকা বিনিয়োগ হয়েছে তার হিসাব আজও দেয়নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। এই নিয়ে আগেই সরব হয়েছিল বাম-বিজেপিসহ বিরোধীরা। মানুষের করের কোটি কোটি টাকা অপচয় হচ্ছে বলে দাবি করেছিল তারা। এবার একই প্রশ্ন তুললেন রাজ্যপাল। 

 

বন্ধ করুন