বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > রেশন দুর্নীতি রুখতে একদা চক্ষুশূল আধার কার্ডের দ্বারস্থ হলেন মমতা
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

রেশন দুর্নীতি রুখতে একদা চক্ষুশূল আধার কার্ডের দ্বারস্থ হলেন মমতা

  • কেন্দ্রের ধাঁচে ডিজিটাল রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ড যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। এর ফলে কোনও ব্যক্তি একবারই রেশন তুলতে পারবেন।

রেশনে দুর্নীতি রোধে এবার বায়োমেট্রিক পদ্ধতির প্রচলনের দিকে পদক্ষেপ করল রাজ্য সরকার। সেজন্য রেশন কার্ডের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে আধার ও মোবাইল ফোন নম্বর। পশ্চিমবঙ্গের গণবণ্টন দফতর সূত্রে খবর, এই ব্যবস্থা চালু হলে আঙুলের ছাপ দিয়ে তোলা যাবে রেশন। 

করোনার লকডাউনের জেরে বিনামূল্যে রেশন বিলি শুরু হতেই পশ্চিমবঙ্গে জেলায় জেলায় শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে ‘চাল চুরি’-র অভিযোগ ওঠে। যা নিয়ে বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হয় রাজ্য সরকারকে। দুর্নীতির দায়ে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের পদত্যাগ দাবি করে বিরোধীরা। এর পরই রেশন ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা আনতে কড়া নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

গণবণ্টন দফতর সূত্রের খবর, এর পরই পদক্ষেপ করেন সরকারি আধিকারিকরা। কেন্দ্রের ধাঁচে ডিজিটাল রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ড যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। এর ফলে কোনও ব্যক্তি একবারই রেশন তুলতে পারবেন। একজনের রেশন তুলে নিয়ে যেতে পারবেন না আরেকজন। 

দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, প্রতি মাসের তৃতীয় ও চতুর্থ সপ্তাহে হবে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার সংযুক্তিকরণের কাজ। রেশন দোকানে গিয়ে আধার নম্বর বললেই তা সংযুক্ত করে দেবেন কর্মীরা। সেই আধার যা নিয়ে বারবার ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

জানা গিয়েছে, এই ব্যবস্থা চালু হলে আঙুলের ছাপ দিয়ে রেশন তুলতে পারবেন উপভোক্তারা। কারও আঙুলের ছাপ কাজ না করলে সেক্ষেত্রে মোবাইল ফোনে পাঠানো হবে OTP. তবে লকডাউন চলাকালীন কার্যকর হবে না এই নতুন পদ্ধতি। 

 

বন্ধ করুন