ঘূর্ণিঝড়ের শক্তি তুলনায় কমে গেলেও, বাতাসে উপস্থিত জলীয় বাষ্পের কারণে সারাদিনই বৃষ্টিপাত হবে। ছবি: এএফপি। (AFP)
ঘূর্ণিঝড়ের শক্তি তুলনায় কমে গেলেও, বাতাসে উপস্থিত জলীয় বাষ্পের কারণে সারাদিনই বৃষ্টিপাত হবে। ছবি: এএফপি। (AFP)

আজ বাংলায় দিনভর ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি, রাতে ভাসবে উত্তরবঙ্গ

  • উত্তরবঙ্গে রাত থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবে ছারখার হয়ে গিয়েছে দক্ষিণবঙ্গ। কিন্তু এখনই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলা যাচ্ছে না। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সারাদিন ঝড়-বৃষ্টি বহাল থাকবে পশ্চিমবঙ্গে। উত্তরবঙ্গে রাত থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। 

আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা জানিয়েছেন, এ দিন সকাল পর্যন্ত নিজের দাপট ধরে রাখবে আমফান, তার জেরে চলবে ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডব। বেলা বাড়লে উত্তর-পূর্বে বাংলাদেশে সরে গিয়ে অতি গভীর নিম্নচাপরেখা সৃষ্টি করবে ঘূর্ণিঝড়। 

ঝড়ের শক্তি তুলনায় কমে গেলেও, বাতাসে উপস্থিত জলীয় বাষ্পের কারণে সারাদিনই বৃষ্টিপাত হবে বলে জানানো হয়েছে। আগামিকাল, শুক্রবার থেকে পরিষ্কার আকাশ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। 

এদিকে বুধবার আমফানের ধ্বংসলীলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। 

বুধবার কলকাতায় ঘূর্ণিঝড় আমফানের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৩৩ কিলোমিটার। আমফানের তাণ্ডবে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১০-১২ জনের। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় সম্পূর্ণ ধ্বংসের খতিয়ান পেতে ৩-৪ দিন লাগবে। 

বন্ধ করুন