বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > যেখানে রামভক্তদের লাঠি খেতে হয়, জেলে যেতে হয়, সেখানে সুশাসন নেই: দিলীপ ঘোষ
দিলীপ ঘোষ (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
দিলীপ ঘোষ (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

যেখানে রামভক্তদের লাঠি খেতে হয়, জেলে যেতে হয়, সেখানে সুশাসন নেই: দিলীপ ঘোষ

  • তিনি বলেন, ‘একাধিক জায়গায় অপ্রিয় ঘটনা ঘটেছে। পুজো করার সময় মন্দির থেকে ভক্তদের পুলিশ অপরাধীর মতো টেনে এনেছে। রাস্তায় আটকেছে। জেলে নিয়ে গেছে।

অযোধ্যায় রামমন্দিরের শিলান্যাসের দিন পশ্চিমবঙ্গে কমপ্লিট লকডাউনের বিরোধিতায় আগেই সরব হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এবার শিলান্যাসের দিন রামভক্তদের আরাধনায় বাধা দেওয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হলেন তিনি। বললেন, এতে বোঝা গেল, পশ্চিমবঙ্গে সুশাসন নেই। 

বৃহস্পতিবার সকালে নিউ টাউনের ইকো পার্কে প্রাতর্ভ্রমণে গিয়ে দিলীপবাবু বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মানুষের মনে একটা দুঃখ থেকে গেল। লকডাউন করে এখানে তাদের মনের মতো করে উৎসব পালন করতে দেওয়া হল না।‘

তিনি বলেন, ‘একাধিক জায়গায় অপ্রিয় ঘটনা ঘটেছে। পুজো করার সময় মন্দির থেকে ভক্তদের পুলিশ অপরাধীর মতো টেনে এনেছে। রাস্তায় আটকেছে। জেলে নিয়ে গেছে। খড়গপুরে এখনো অনেকের জামিন হয়নি। পুলিশ তাদের রাত থেকে আটকে রেখেছে।’

রাজ্য সরকারকে ভর্ৎসনা করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘পুজো করার অপরাধে, মন্দিরে যাওয়ার অপরাধে যদি কারও জেল হয়, পুলিশ গ্রেফতার করে, লাঠির বাড়ি খেতে হয়। তাহলে আমি মনে করি এখানে সুশাসন নেই।’

বলে রাখি, বুধবার অযোধ্যায় রামমন্দিরের শিলান্যাস করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেদিন রাজ্যজুড়ে কমপ্লিট লকডাউন ঘোষণা করে রাজ্য সরকার। এর জেরে রাজ্য সরকারের সঙ্গে গেরুয়াপন্থীদের সংঘাত বাঁধে। বিজেপি-সহ গেরুয়া শিবিরের দাবি, তোষণের রাজনীতি করতে রামমন্দিরের শিলান্যাসের দিন লকডাউন কেরছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

বন্ধ করুন