বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Uttar Trekking death: উত্তরাখণ্ডে ট্রেকিং করতে গিয়ে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা! মৃত্যু কসবার মহিলার

Uttar Trekking death: উত্তরাখণ্ডে ট্রেকিং করতে গিয়ে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা! মৃত্যু কসবার মহিলার

দীপাঞ্জনা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ট্রেকিং করতে ভালবাসেন দীপাঞ্জনা। তিনি প্রতিবারই ট্রেকিং করতে যান। তাই এবারও উত্তরাখণ্ডে ট্রেকিং করতে গিয়েছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন তার স্বামী, ছেলে এবং কয়েকজন বন্ধু। গত ৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি থেকে রওনা দিয়েছিলেন।

উত্তরাখণ্ডে ট্রেকিং করতে গিয়ে মৃত্যু হল আয়কর দফতরের এক অফিসারের। মৃতের নাম দীপাঞ্জনা বন্দ্যোপাধ্যায় (৩৫)। তিনি কলকাতার কসবার বেদিয়া ডাঙার বাসিন্দা। সপরিবারে তিনি উত্তরাখন্ডে ট্রেকিং করতে গিয়েছিলেন। সেই সময় তার শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। পরে তিনি মারা যান। আজ তার দেহ কসবার বাড়িতে ফিরবে বলে জানা গিয়েছে।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ট্রেকিং করতে ভালবাসেন দীপাঞ্জনা। তিনি প্রতিবারই ট্রেকিং করতে যান। তাই এবারও উত্তরাখণ্ডে ট্রেকিং করতে গিয়েছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন তার স্বামী, ছেলে এবং কয়েকজন বন্ধু। গত ৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি থেকে রওনা দিয়েছিলেন। ঝুমা পাল নামে তার এক আত্মীয় বলেন, ‘শুক্রবার তিনি শ্বাসকষ্ট অনুভব করেছিলেন। এমনকি তার স্বামী তাকে একজন ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান।’ বৃহস্পতিবার পরিবারের সঙ্গে ফোনে তাদের কথা হয়েছিল। তখন তারা সেখানে ভালোই ছিল বলে জানান পরিবারের সদস্যরা। তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরেই পরিবারের কয়েকজন সদস্য দেরাদুন-ঋষিকেশের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। রবিবার তার দেহ নিয়ে ফিরে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে।

পরিবারের সদস্যরা জানান, দীপাঞ্জনা ট্রেকিংয়ের জন্য একটি দলে যোগ দিয়েছিলেন। এর আগেও তিনি বহুবার ট্রেকিং করেছেন। তবে আগে এই ধরনের কোনও সমস্যা তার হয়নি। এই ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়েছেন দীপাঞ্জনার পরিবারের সদস্যরা। তাদের কথায়, দীপাঞ্জনা সব সময় নতুন জায়গায় যেতে ভালো বসতেন। এক প্রতিবেশীর কথায়, দীপাঞ্জনার পরিবার একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। জানা গিয়েছে, মৃত্যুর পরে সেখানেই ময়না তদন্ত হয়েছে দীপাঞ্জনার দেহের। এরপরেই দেহ তার পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। সরকারি নিয়ম মেনেই তার দেহ বাড়িতে ফেরানো হচ্ছে বলে জানান পরিবারের সদস্যরা।

বন্ধ করুন