বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বেধড়ক মারে আক্রান্ত ব্যক্তি, বাঁচাতে গিয়ে মেয়েকেও মারধর, কাঠগড়ায় তৃণমূল
বিজেপি লেখা টি–শার্ট পরায় মারধর করা হলো বাবা ও মেয়েকে। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
বিজেপি লেখা টি–শার্ট পরায় মারধর করা হলো বাবা ও মেয়েকে। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

বেধড়ক মারে আক্রান্ত ব্যক্তি, বাঁচাতে গিয়ে মেয়েকেও মারধর, কাঠগড়ায় তৃণমূল

  • বিজেপি লেখা টি–শার্ট পরায় মারধর করা হলো বাবা ও মেয়েকে।

আর দু’‌দিন পর দ্বিতীয় দফার বিধানসভা নির্বাচন। তার আগেও সামনে এলো একের পর এক রাজনৈতিক অশান্তির খবর। বিজেপি লেখা টি–শার্ট পরায় মারধর করা হলো বাবা ও মেয়েকে। এই অভিযোগ উঠেছে সিঁথি থানা এলাকায়। অভিযোগ, প্রচণ্ড মারের চোটে ফুলে গিয়েছে চোখ। এমনকী কালশিটে পড়ে গিয়েছে। এই ঘটনায় তীব্র শোরগোল পড়ে গিয়েছে। আক্রান্ত মেয়েটির ভিডিও টুইট করে কড়া ভাষায় তোপ দেগেছে বিজেপিও।

জানা গিয়েছে, এটা দোলের দিন দুপুরের ঘটনা। তাঁর পরণে বিজেপি লেখা গেঞ্জি ছিল। তার জন্যই মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি। ঘটনায় অভিযোগের তির তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। ভিডিও’‌তে দেখা যাচ্ছে, নীল গেঞ্জি পরা একটা মেয়ে। তাঁর ডান চোখ ফুলে ঢোল হয়ে গিয়েছে। ঠিক করে চোখ খুলতেও পারছেন না মেয়েটি। চোখের নীচে কালশিটে পড়ে গিয়েছে। মেয়েটি অভিযোগ করেছে, ‘‌রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় আমার জ্যেঠুকে মারে তৃণমূল কংগ্রেসের লোকজন। আমার বাবা বাঁচাতে যায়। বাবাকেও মারে তখন। এরপর আমরা বাবাকে বাঁচাতে গেলে, আমাদেরকে এভাবে মারধর করা হয়।’‌

স্থানীয় সূত্রে খবর, সিঁথি ক্লাবের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি ও তাঁর মেয়ে। ক্লাবে তখন পালিত হচ্ছিল দোল, খেলা হবে গানও বাজছিল। ব্যক্তির পরনে ছিল বিজেপি লেখা গেঞ্জি। ওখানে কিছু লোক তাঁর সাইকেল টেনে ধরে। সাইকেল থেকে নামিয়ে তাঁর গেঞ্জি ছিড়ে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। এরপর মারধরও করা হয় তাঁকে। মেয়ে বাধা দিতে গেলে তাঁকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। ১৫ বছরের মেয়ের চোখের তলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনায় সিথি থানার দ্বারস্থ হয় ওই পরিবার।

বিজেপির পক্ষ থেকে কড়া সমালোচনা করে বলা হয়েছে, ‘‌এটা তৃণমূল কংগ্রেসের বর্বরতার নিকৃষ্টতম উদাহরণ। একটা বাচ্চা মেয়েকে বেধড়ক মারা হল, কারণ সে তৃণমূল কংগ্রেসের গুন্ডাদের হাত থেকে তার বাবাকে বাঁচাতে গিয়েছিল! এই মেয়েটি কি বাংলার মেয়ে নয়?’‌ ঘটনায় তদন্ত করছে সিঁথি থানার পুলিশ। এই ঘটনায় দু’‌জনকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। তবে ঘটনার দায় অস্বীকার করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

বন্ধ করুন