বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > যুবকের মৃত্যু ঘিরে রহস্য ঘনীভূত, শেষকৃত্যের উদ্যোগের মাঝেই কী ঘটল?
বেলদা থানার ছবি।

যুবকের মৃত্যু ঘিরে রহস্য ঘনীভূত, শেষকৃত্যের উদ্যোগের মাঝেই কী ঘটল?

  • শেষকৃত্য সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ততক্ষণে শ্মশানে কাঠও পৌঁছে যায়। শুরু হয় প্রস্তুতি। স্থানীয় সূত্রের খবর, দেহ নিয়ে শেষকৃত্যের জন্য শ্মশানের উদ্দেশে যখন রওনা হয়েছেন পরিজনরা তখনই ঘটল এক ঘটনা।

শুক্রবার সকালে বছর ২৫ এর যুবক অজয় পাত্রের দেহ অচৈতন্য অবস্থায় একটি মাঠে পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেখানে এমন অবস্থায় দেহ উদ্ধার হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। ঘটনা, পশ্চিম মেদিনীপুরের নারায়ণগড় ব্লকের বেলদা থানার অন্তর্গত চন্দন সরিষা এলাকার। এই মৃত্যু ঘিরে রহস্য দানা বাঁধতেই পদক্ষেপ করে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, অজয় পাত্রের দেহ নিয়ে এদিন শেষকৃত্য সম্পন্ন করার উদ্যোগ নেন তাঁর পরিবার ও পরিজনরা। এমন ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে আসে এলাকায়। ততক্ষণে কান্না , অর্তনাদ অজয় পাত্রের বাড়ি জুড়ে। এদিকে, শেষকৃত্য সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ততক্ষণে শ্মশানে কাঠও পৌঁছে যায়। শুরু হয় প্রস্তুতি। স্থানীয় সূত্রের খবর, দেহ নিয়ে শেষকৃত্যের জন্য শ্মশানের উদ্দেশে যখন রওনা হয়েছেন পরিজনরা তখনই ঘটল এক ঘটনা। শ্মশানে না গিয়ে দেহ নিয়ে যাওয়া হয় বেলদা হাসপাতালে। সেখানে দেহকে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। উল্লেখ্য়,অজয় পাত্রের দেহ যেহেতু অচৈতন্য অবস্থায় পাওয়া যায়, ও তাঁর মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হয়নি, তাই ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেয় প্রশাসন। গ্রামবাসীদের বক্তব্য, স্থানীয় সিভিক ভলান্টিয়ারদের কথায় মৃতদেহ আনা হয় বেলদা গ্রামীন হাসপাতালে। উল্লেখ্য়, এর আগে মাঠে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে থাকা অবস্থাতেই অজয় পাত্রের দেহ ঘরে নিয়ে আসেন তাঁর পরিবারের লোকজন। তবে মৃত্যুর কারণ প্রকাশ্যে না আসায় তৈরি হয় শেষকৃত্য ঘিরে জটিলতা।

স্থানীয় সূত্রের খবর, শনিবার বেলদা থানার পুলিশ ওই মৃতদেহকে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানোর নির্দেশ দেয়। শ্মশানযাত্রীদের এই নির্দেশের কথা জানিয়ে, দেহকে বেলদা গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলা হয়। এরপর দেহ পৌঁছয় হাসপাতালে। এই মৃত্যু ঘিরে ক্রমেই চড়ছে রহস্যের পারদ।

বন্ধ করুন