বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > ৭০-এর কথা বলে ৪টি অক্সিজেন প্ল্যান্টের অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র, মোদীকে চিঠি মমতার
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

৭০-এর কথা বলে ৪টি অক্সিজেন প্ল্যান্টের অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র, মোদীকে চিঠি মমতার

  • রাজ্যে জরুরি ভিত্তিতে ৭০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসানোর কথা ছিল কেন্দ্রের। কিন্তু কেন্দ্র মাত্র ৪টি অক্সিজেন প্ল্যান্টের অনুমতি দিয়েছে।

রাজ্যে জরুরি ভিত্তিতে ৭০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসানোর কথা ছিল কেন্দ্রের। কিন্তু কেন্দ্র মাত্র ৪টি অক্সিজেন প্ল্যান্টের অনুমতি দিয়েছে। এই অভিযোগ এনে এদিন ফের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলার হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেন প্ল্যান্ট করতে চেয়ে আবেদন করা হয় চিঠিতে।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, 'আমাদের বলা হয়েছিল যে আমরা ৭০টি পিএসএ প্ল্যান্ট পাব, তবে এখন কেন্দ্রের তরফে বলা হয় যে আমরা ৪টি পিএসএ প্ল্যান্ট পাব প্রথম দফায়। তবে বাকি পিএসএ প্ল্যান্ট নিয়ে কোনও স্পষ্ট বার্তা নেই। বাকি প্ল্যান্টের অনুমতি কেন দেওয়া হল না, তাও স্পষ্ট করা হয়নি।' মমতার আরও অভিযোগ, রাজ্য সরকার তার নিজের তহবিল ও সংস্থা দিয়ে অতিরিক্ত অক্সিজেন কারখানা তৈরি করার পরিকল্পনা করেছে। যদিও সেই পরিকল্পনা দিল্লির কারণে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মোদীকে আরও লেখেন, 'নিজেদের টাকায় আমরা যেই পিএসএ প্ল্যান্ট বসাতে চাই, সেই প্রক্রিয়া ব্যাহত হচ্ছে। রাজ্যের সংস্থাগুলি যে সাপ্লিমেন্টারি পিএসএ ইনস্টল করতে চায় তা দিল্লির দোলাচলের কারণে করা হচ্ছে না।'

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও লেখেন, 'আমি বিশ্বাস করি কোভিডের বিরুদ্ধে আমরা জিততে পারব এক সঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে। আমি এই ইস্যুতে জরুরি ভিত্তিতে আপনার হস্তক্ষেপ এবং সাহায্য চাইছি। আমি আপনার কাছে অনুগ্রহ করছি যাতে সঠিক, ন্যায্য এবং দ্রুত সব অগ্রাধিকারগুলিকে স্থির করে কাজ করা হোক।'

উল্লেখ্য, সপ্তাহখানেক আগেই রাজ্যের অক্সিজেনের সমস্যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছিল, বাংলায় মেডিকেল অক্সিজেনের চাহিদা বাড়ছে। প্রতিদিন ৪৭০ মেট্রিক টন অক্সিজেন লাগছে। আগামীতে তা বেড়ে ৫৫০ মেট্রিক টন হতে পারে। বাংলায় যে পরিমাণ অক্সিজেন উৎপাদিত হচ্ছে, তা থেকেই অন্য রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে। রোজ বাংলায় ৫৮০ মেট্রিক টন অক্সিজেনের প্রয়োজন, সেখানে মাত্র ৩০৮ মেট্রিক টন অক্সিজেন মিলছে। এই আবহে রাজ্যে অক্সিজেন প্ল্যান্ট প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

বন্ধ করুন