বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কীভাবে ভাঙল এত বাঁধ? মমতার প্রশ্নের পর তদন্ত কমিটি গঠন, ৭ দিনে জমা পড়বে রিপোর্ট
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  (ছবি সৌজন্য ভিডিয়ো)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  (ছবি সৌজন্য ভিডিয়ো)

কীভাবে ভাঙল এত বাঁধ? মমতার প্রশ্নের পর তদন্ত কমিটি গঠন, ৭ দিনে জমা পড়বে রিপোর্ট

  • সেচ দফতরকে ভর্ৎসনা করে মমতা প্রশ্ন করেন, কী করে এত বাঁধ ভাঙল? তদন্তের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

ইয়াসের জেরে বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় বহু গ্রামে জল ঢুকেছে। ভিটেমাটি ছাড়া হয়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। এই আবহে সেচ দফতরের কাজ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এদিন নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানান, মোট ১৩৪টি বাঁধ ভেঙেছে ঘূর্ণিঝড়ের জেরে। এরপরই সেচ দফতরকে ভর্ৎসনা করে মমতা প্রশ্ন কর, কী করে এত বাঁধ ভাঙল? তদন্তের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতার প্রশ্নের মুখে পড়েই এবার তড়িঘড়ি তদন্তে কমিটি গঠন করলেন সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র।

জানা গিয়েছে গঠিত তদন্ত কমিটি আগামী ৭ দিনের মধ্যে রিপোর্ট তৈরি করে তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পাঠাবে। এই তদন্ত কমিটির নেতৃত্ব দেবেন সেচ দফতরের মুখ্য ইঞ্জিনিয়ার। উল্লেখ্য, সেচ দফতরের দায়িত্ব পাওয়া সৌমেন মহাপাত্র বেজায় চাপে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্নবাণের সম্মুখীন হয়ে। এদিকে এই চাপ সৌমেন মহাপাত্রের উপর থেকে গিয়ে পড়তে পারে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া দুই প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর।

প্রসঙ্গত, তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া দুই হেভিওয়েটই দায়িত্ব সামলেছেন সেচ দফতরের। ভোটের আগে দলত্যাগ করার আগে পর্যন্ত পরিবেশ ও বন দফতরের দায়িত্বে ছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি ২০২০ সালের আগে রাজ্য়ের সেচমন্ত্রীও ছিলেন। রাজীবকে বনমন্ত্রী করার সময় শুভেন্দুকে সেচমন্ত্রী করা হয়। এদিকে সুন্দরবন এলাকায় ম্যানগ্রোভ লাগানো নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মমতা। সেই প্রশ্নের চাপও রাজীবের ঘাড়ে গিয়ে পড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন