লকডাউন কবলিত কক্স বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনাবেচা তদারকিতে ব্যস্ত নিরাপত্তাকর্মী। ছবি: এএফপি। (AFP)
লকডাউন কবলিত কক্স বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনাবেচা তদারকিতে ব্যস্ত নিরাপত্তাকর্মী। ছবি: এএফপি। (AFP)

করোনার প্রকোপে বাংলাদেশের কক্স বাজারে জারি সম্পূর্ণ লকডাউন

  • জেলার ঘিঞ্জি এলাকায় বেহাল নিকাশি ব্যবস্থার কারণে সংক্রমণের হার লাগামছাড়া হতে পারে।

করোনা সংক্রমণে লাগাম দিতে মায়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গা শরণার্থী অধ্যুষিত কক্স বাজার জেলায় সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করল বাংলাদেশ সরকার।

এর আগে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছিলেন যে, জেলার ঘিঞ্জি এলাকায় বেহাল নিকাশি ব্যবস্থার কারণে সংক্রমণের হার লাগামছাড়া হতে পারে। বিশেষ ভাবে বিপজ্জনক পরিস্থিতি দেখা দেয় রোহিঙ্গাদের শরণার্থী শিবিরে। এখনও পর্যন্ত শিবিরের কাছাকাছি এলাকায় একটি সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে।

বাংলাদেশে বুধবার পর্যন্ত করোনা আক্রান্তেরক সংখ্যা বেড়ে ২০০ হয়েছে। এর মধ্যে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সম্পূর্ণ লকডাউনের জেরে কক্স বাজার জেলার সমস্ত প্রবেশপথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ওই জেলা থেকে কাউকে বেরোতেও দেওয়া হচ্ছে না। জানা গিয়েছে, পরিস্থিতির উন্নয়ন না হওয়া পর্যন্ত এই ব্যবস্থা জারি থাকবে।

রিফিউজি কমিশনার মাহবুব আলম তালুকদার জানিয়েছেন, ওই জেলায় স্বাস্থ্যকর্মীদের চলাফেরার উপরেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সারাদিন শরণার্থী শিবিরের ভিতরে ও বাইরে টহল দিয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। তবে চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রেও মেনে চলা হচ্ছে কটোর নিষেধাজ্ঞা।

মাহবুব আলম তালুকদার জানিয়েছেন, যাঁরাই সম্প্রতি বিদেশ সফর সেরে এসেছেন, তাঁদের শরণার্থী শিবিরে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন সম্পূর্ণ না করা অবধি তাঁদের বাড়ি থেকেও বেরোতে দেওয়া হচ্ছে না।

বন্ধ করুন