লকডাউনের গুরুত্বের উপর জোর দিল কেন্দ্র (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
লকডাউনের গুরুত্বের উপর জোর দিল কেন্দ্র (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

Coronavirus Update: লকডাউন ছাড়া একজন করোনা আক্রান্ত মাসে ৪০৬ জনকে সংক্রামিত করতে পারেন, সতর্কতা কেন্দ্রের

  • স্বাস্থ্য মন্ত্রকের যুগ্মসচিব বলেন, করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব হল সামাজিক প্রতিষেধক।

লকডাউন বাড়ানো হবে কিনা, সে বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সাফ জানিয়ে দিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। তবে লকডাউনের ফলে সংক্রমণের মাত্রা কীভাবে কমে, তা নিয়ে একটি গবেষণা তুলে ধরে এই তথ্য জানালেন মন্ত্রকের যুগ্মসচিব লব আগরওয়াল।

আরও পড়ুন : Coronavirus Update: আর্জি একাধিক রাজ্য-বিশেষজ্ঞের, আরও দু'সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর ভাবনা কেন্দ্রের

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের যুগ্মসচিব বলেন, 'যদি আমরা R0 (R-Naught)-কে ২.৫ ধরি, তাহলে একজন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি ৩০ দিনে ৪০৬ জনকে সংক্রামিত করতে পারেন। কিন্তু সামাজিক দূরত্ব ও লকডাউনের মতো বিষয়গুলি যদি ৭৫ শতাংশ কমিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে আক্রান্ত ব্যক্তি মাত্র ২.৫ জনকে সংক্রামিত করতে পারেন।'

আরও পড়ুন : Covid-19: কথা বলা, নিশ্বাস নেওয়া থেকেও ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস, দাবি গবেষকদের

তিনি জানান, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের গবেষণায় এরকম একটি তথ্য পাওয়া গিয়েছে। যেখানে R0 মানে একজন আক্রান্ত ব্যক্তি কতজন সংক্রমণ করতে পারেন অর্থাৎ কোনও রোগের সংক্রমণের হার বোঝানোর একটি মাপকাঠি।

আরও পড়ুন : Coronavirus Update: লকডাউনের জেরে ভারতে বেকারত্বের হার ছাড়াল ২৩% : সমীক্ষা

সেজন্য লকডাউন ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার আর্জি জানান মন্ত্রকের যুগ্মসচিব। তিনি বলেন, 'করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব হল সামাজিক প্রতিষেধক। আমি আবার বলতে চাই, আমাদের সাহায্য করুন, যাতে আমরা আপনাদের সাহায্য করতে পারি।

বন্ধ করুন