বাড়ি > হাতে গরম > Covid-19 crisis: বাংলাদেশি জলযানের স্ক্রিনিং আবশ্যিক করল পোর্ট ট্রাস্ট
চিন থেকে আসা সমস্ত জাহাজকে সাগরে নোঙর করার পরে ১০০% থার্মাল স্ক্রিনিং প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে তবেই বন্দরে প্রবেশের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে।
চিন থেকে আসা সমস্ত জাহাজকে সাগরে নোঙর করার পরে ১০০% থার্মাল স্ক্রিনিং প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে তবেই বন্দরে প্রবেশের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে।

Covid-19 crisis: বাংলাদেশি জলযানের স্ক্রিনিং আবশ্যিক করল পোর্ট ট্রাস্ট

  • ২৭ জানুয়ারি থেকে ১২ মার্চ পর্যন্ত ৪৪১টি জলযানের মোট ৮,১৪৫ জন নৌকর্মী ও যাত্রীকে স্ক্রিনিং পদ্ধতির আওতায় আনা হয়েছে।

Covid-19 এর প্রকোপ এড়াতে বাংলাদেশ থেকে আসা জলযানের কর্মীদের শুক্রবার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা শুরু করল কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি, চিন থেকে আসা সমস্ত জাহাজকে সাগরে নোঙর করার পরে ১০০% থার্মাল স্ক্রিনিং প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে তবেই বন্দরে প্রবেশের অনুমোদন দেওয়া আবশ্যিক ঘোষণা করল পোর্ট ট্রাস্ট।

গত ২৭ জানুয়ারি থেকে ১২ মার্চ পর্যন্ত ৪৪১টি জলযানের মোট ৮,১৪৫ জন নৌকর্মী ও যাত্রীকে স্ক্রিনিং পদ্ধতির আওতায় আনা হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

এঁদের মধ্যে শুধুমাত্র একজন যাত্রী জ্বরে কাবু হলেও তাঁর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে বিবৃতিতে প্রকাশ। জানা গিয়েছে, ওই যাত্রীকে তা সত্ত্বেও বাধ্যতামূলক কোয়্যারান্টাইন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার পরে ছাড়া হয়।

করকোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে এ দিন কলকাতায় অনুষ্ঠিত আই লিগ ম্যাচগুলি আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পিছিয়ে দিতে অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনকে বিবেচনা করে দেখার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই বিষয়ে এআইএফএফ লভাপতি প্রফুল প্যাটেলকে রাজ্য সরকারের মনোভাব জানাতে সংগঠনের প্রতিনিধিদের নির্দেশ দেন মমতা।

বন্ধ করুন