রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়েছে চার ফাঁসির আসামি।
রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়েছে চার ফাঁসির আসামি।

প্রাণভিক্ষার আর্জির জেরে ১৪ দিন পিছোল নির্ভয়াকাণ্ডে ফাঁসি

আইন অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আর্জি নাকচ করলেও ফাঁসির আসামিকে ১৪ দিন সময় দেওয়া হয়। সেই নিয়মেই নির্ভয়াকাণ্ডে ৪ দণ্ডিতকে ২২ জানুয়ারি ফাঁসিতে ঝোলানো সম্ভব হবে না বলে আদালতকে জানাল দিল্লি প্রশাসন।

পিছিয়ে গেল নির্ভয়াকাণ্ডে দোষী চার বন্দির ফাঁসি। বুধবার দিল্লি প্রশাসনের তরফে দিল্লি হাইকোর্টকে জানানো হয়েছে, ২২ জানুয়ারি ওই চার দণ্ডিতের ফাঁসি কার্যকর করা সম্ভব হবে না।

এ দিন দিল্লির আম আদমি পার্টি সরকার জানিয়েছে, ২২ জানুয়ারি সকাল সাতটায় নির্ভয়াকাণ্ডে দণ্ডিত মুকেশ সিং, পবন গুপ্তা, অক্ষয় সিং ঠাকুর ও বিনয় শর্মার ফাঁসি কার্যকর করা সম্ভব হবে না। জানা গিয়েছে, রাষ্ট্রপতির কাছে ওই চার ফাঁসির আসামি প্রাণভিক্ষার আর্জি জানানোর পরে তা নাকচ হয়ে গেলেও আইন অনুযায়ী ফাঁসির আসামিদের তার পরে ১৪ দিন সময় দেওয়া হয়। সেই নিয়ম মেনেই ২২ জানুয়ারি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা যাবে না।

মঙ্গলবার আদালত থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার শেষ আইনি প্রক্রিয়া ভেস্তে যায় ওই চার আসামির। নির্ভয়ার ধর্ষক মুকেশ সিং ও বিনয় শর্মার প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে সুপ্রিম কোর্ট। ফাঁসি রদের শেষ রাস্তা হিসাবে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানায় মুকেশ।পরে বাকি চার বন্দিও প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছে

৭ জানুয়ারি নির্ভয়ার চার ধর্ষকের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে দিল্লির পাতিয়ালা হাউজ কোর্ট। সেই সময়েই স্পষ্ট হয়ে যায় যে, একমাত্র রাষ্ট্রপতির কাছেই এবার প্রাণভিক্ষার আর্জি জানাতে পারে ওই চার বন্দি। নির্ভয়ার মা অবশ্য তার আগেই রাষ্ট্রপতির উদ্দেশে প্রাণভিক্ষার আর্জি নাকচ করার আবেদন জানান। তিনি বলেন, আইনের সাহায্য নিলেও নির্দিষ্ট দিনেই ওই চার দণ্ডিত ফাঁসিতে ঝুলবে।

বন্ধ করুন