বুধবার ত্রিপুরায় হওয়া ঝড় ও শিলাবৃষ্টির জেরে ঘরছাড়া চার হাজার মানুষ। একই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত পাঁচ হাজার বাড়ি ও শস্য। ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিতে রাজ্যে হাজার হাজার গাছ পড়েছে।

ঝড়বৃষ্টিতে আক্রান্ত মানুষের জন্য ২২টি ত্রাণ শিবির খুলেছে রাজ্য সরকার। ১৭টি খোলা হয়েছে সেপাহিজিলা জেলায় ও পাঁচটি খোয়াই জেলায়। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত তাকারজালা, গোলাঘাটি ও কল্যানপুর।

মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয়েছে যে সেপাহিজিলা জেলার প্রায় ৪২০০জনকে ত্রাণ শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তারা যাতে ত্রাণ শিবিরেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেন, সেই দিকে নজর দেওয়া হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব ঝড়বৃষ্টি প্রভাবিত কিছু অঞ্চল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন প্রত্যেক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৫০০০ টাকা দেওয়া হবে।যাদের বাড়ি অল্প ক্ষতি হয়েছে তাদের তিন হাজার টাকা দেওয়া হবে। যাদের বাড়ি প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছে তাদের ৯৫ হাজার টাকা করে দেবে রাজ্য সরকার।

যেসেব বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেগুলির নথিভুক্ত করে খুব দ্রুত সাহায্য দেওয়া হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।




বন্ধ করুন